দেশবন্ধু গ্রুপের ৮০০ কোটি টাকার নতুন বিনিয়োগ

সারাদিন ডেস্কসারাদিন ডেস্ক
প্রকাশিত: ৯:১৯ অপরাহ্ণ, ২৮/১০/২০২১

সংগৃহীত

মহামারি করোনার কারণে দেশের অনেক প্রতিষ্ঠানের উৎপাদন কার্যক্রম এখনো বন্ধ। উদীয়মান অর্থনীতিতে বড় ধরনের ধাক্কাও লেগেছে। কিন্তু এ দুর্যোগকালে কর্মী ছাঁটাইয়ের পথে না হেঁটে নতুন বিনিয়োগ করেছে দেশবন্ধু গ্রুপ। ফলে সৃষ্টি হয়েছে নতুন কর্মসংস্থান।

দেশবন্ধু গ্রুপের কর্মকর্তারা বলছেন, গ্রুপের চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তাফার লক্ষ্যই হলো দেশে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা। একইসঙ্গে দেশের গতিময় অর্থনীতির চাকা সচল রাখা। চলমান শিল্পপ্রতিষ্ঠানগুলোর উৎপাদন ক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি নতুন শিল্প স্থাপন অব্যাহত রেখেছে প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার। এতে করে বেসরকারি খাতে ব্যাপক অবদানসহ কর্মসংস্থান, উন্নতমানের পণ্য উৎপাদন ও রপ্তানিতে স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বাজারে দেশবন্ধু গ্রুপ আরো অগ্রসর হবে বলে আশা করছেন কর্তৃপক্ষ।

জানা যায়, করোনার গত দুই বছরে নিজেদের ব্যবসা বাড়াতে উৎপাদমুখী নানা প্রকল্প হাতে নিয়েছে গ্রুপটি। এ লক্ষ্যে গ্রুপের অন্যতম প্রতিষ্ঠান দেশবন্ধু সুগার মিলস, দেশবন্ধু বেভারেজ, দেশবন্ধু প্যাকেজিং ও দেশবন্ধু টেক্সটাইল মিলসসহ আরও কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন ও উৎপাদন বাড়াতে ৮০০ কোটি টাকা নতুন করে বিনিয়োগ করেছে। এতে নতুন করে আরও ২০ শতাংশ কর্মসংস্থান বেড়েছে।

জানা গেছে, ১৯৮৯ সালে ট্রেডিং ও সার আমদানির মাধ্যমে যাত্রা করে ‘দেশবন্ধু’। তারপর থেকে দেশের এই প্রতিষ্ঠিত শিল্প গ্রুপটিকে আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। হাঁটি হাঁটি পা পা করে এ বছর গ্রুপটি অগ্রগতির ৩২ বছর উদযাপন করবে। বর্তমানে প্রায় ২০ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে। এছাড়া নতুন প্রকল্পগুলো চালু হলে কর্মসংস্থান বৃদ্ধিতে দেশবন্ধু গ্রুপ উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে বলে মনে করছেন কোম্পানির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

দেশবন্ধু পলিমার, দেশবন্ধু সিমেন্ট, সাউথইস্ট সোয়েটার, দেশবন্ধু শিপিং, জিএম হোল্ডিংস, সাহেরা অটো রাইস মিলস, দেশবন্ধু সিকিউরিটি সার্ভিসেস, ট্রেডিং কোম্পানিজ, দেশবন্ধু পাওয়ার প্ল্যান্ট, দেশবন্ধু টেক্সটাইল, দেশবন্ধু ফাইবার, দেশবন্ধু কনজ্যুমার অ্যান্ড অ্যাগ্রো, সাহেরা ওয়াসেক হাসপাতাল, দেশবন্ধু পার্সেল অ্যান্ড লজিস্টিকস রয়েছে গ্রুপটির অধীনে।

সারাদিন/২৮ অক্টোবর/ আর

Nagad