ম্যাগসেসে পুরস্কার পেলেন বাংলাদেশী বিজ্ঞানী ফেরদৌসী কাদরী

সারাদিন ডেস্কসারাদিন ডেস্ক
প্রকাশিত: ৪:০৪ অপরাহ্ণ, ৩১/০৮/২০২১

এশিয়ার নোবেল খ্যাত ‘ম্যাগসেসে পুরস্কার’ পেয়েছেন বাংলাদেশের বিজ্ঞানী ড. ফেরদৌসী কাদরী। লাখো মানুষের উপকারে টিকার উন্নয়নে তাঁর নিবেদিত ভূমিকার জন্য- এই পুরস্কার দেওয়া হয় তাকে।

মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) ফিলিপাইন থেকে র‌্যামন ম্যাগসেসে পুরস্কার বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়। র‌্যামন ম্যাগসেসের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

জানা যায়, ড. ফেরদৌসী কাদরী আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র, বাংলাদেশের (আইসিডিডিআর,বি)-এর একজন সিনিয়র বিজ্ঞানী। কলেরার টিকা নিয়ে গবেষণা ও সাশ্রয়ী দামে টিকা সহজলভ্য করে লাখো প্রাণ রক্ষায় কাজ করেছেন তিনি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার টিকাবিষয়ক বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য ছিলেন তিনি। পুরস্কার ঘোষণার সময় র‌্যামন ম্যাগসেসে কমিটির পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘লাখো মানুষের উপকারে টিকার উন্নয়নে তাঁর নিবেদিত ভূমিকার জন্য’ এই পুরস্কার দেওয়া হলো।

ম্যাগসেসে কমিটিকে ধন্যবাদ জানিয়ে এক ভিডিও বার্তায় ড. ফেরদৌসী কাদরী বলেন, ‘আমি আনন্দিত ও সম্মানিত বোধ করছি। র‌্যামন ম্যাসসেসেকে এ জন্য ধন্যবাদ জানাই। এই পুরস্কার আমি বাংলাদেশ, আমার জন্মভূমির প্রতি উৎসর্গ করলাম। সেই সঙ্গে আমার প্রতিষ্ঠান আইসিডিডিআরবিকে উৎসর্গ করছি। এই প্রতিষ্ঠান দীর্ঘদিন ধরে আমার কাজ এগিয়ে নিতে সহযোগিতা করেছে।’ ফেরদৌসী কাদরী তাঁর বার্তায় বাকি জীবন জনস্বাস্থ্যের উন্নয়নে উৎসর্গ করার প্রতিশ্রুতি দেন।

ম্যাগসেসের ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, ৭০ বছরের ফেরদৌসী কাদরীর জন্ম বাংলাদেশের একটি মধ্যবিত্ত পরিবারে। চিকিৎসা গবেষণায় বিশেষজ্ঞ হওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া এই বিজ্ঞানী জৈব রসায়নে ডিগ্রি অর্জন করেন এবং যুক্তরাজ্যের লিভারপুল ইউনিভার্সিটি থেকে ডক্টরেট ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি বাংলাদেশের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেন এবং ১৯৮৮ সালে আইসিডিডিআর,বি-তে যোগ দেন। সেখানে তিনি সংক্রামক রোগ, ইমিউনোলজি, ভ্যাকসিন ডেভেলপমেন্ট এবং ক্লিনিকাল ট্রায়ালে মনোনিবেশ করেন।

এছাড়া পুরস্কার পাওয়া অন্য দুজনের মধ্যে মুহাম্মদ আমজাদ সাকিব পাকিস্তানের একটি বৃহৎ ক্ষুদ্রঋণ প্রতিষ্ঠানের প্রধান হিসেবে দেশটিতে দারিদ্র বিমোচনে ভূমিকা রেখেছেন। অন্যদিকে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় বাস্ত্যুচুত শরণার্থীদের জীবন পুনর্গঠনে নিজের কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ এই পুরস্কার পেয়েছেন স্টিভেন মানচি।

Nagad

সারাদিন/৩১ আগস্ট/ আর