আ. লীগ এমনি এমনি আপনাকে ক্ষমতায় নিয়ে আসবে না: মির্জা ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক:নিজস্ব প্রতিবেদক:
প্রকাশিত: ৩:৪৬ অপরাহ্ণ, ০৯/০৬/২০২১

যুদ্ধ করতেই হবে। আওয়ামী লীগ এমনি এমনি আপনাকে ক্ষমতায় নিয়ে আসবে না- বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, মেধা ও প্রজ্ঞার লড়াইয়ের মাধ্যমে তাদের কাছ থেকে ক্ষমতা ছিনিয়ে আনতে হবে। এরা একেবারেই ডিক্টেটর বনে গেছে। নির্বাচন করে এরা কোনো দিন জিততে পারবে না। এরা নির্বাচন নিয়ে তামাশা করবে। কিন্তু, সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করে নিজেদেরকে জয়ী করবে।

বুধবার (৯জুন) সকালে নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচতলায় জিয়াউর রহমানের ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বই প্রদর্শনী ও আলোচনা সভায় বিএনপির মহাসচিব এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, নির্বাচন করে কখনও আওয়ামী লীগ জিততে পারবে না জেনেই স্বৈরাচারী কায়দায় ক্ষমতায় টিকে আছে। নির্বাচনের সময় এলেই জনগণকে ধোঁকা দিয়ে তারা নির্বাচনি খেলা তৈরি করে।

পৃথিবীর সমস্ত বড় বড় বিজয়, বড় বড় বিপ্লব, বড় বড় অর্জন কিন্তু একটা স্লোগানে—আমরা করব জয়। এই স্লোগান দিয়েই আমাদের জয় করতে হবে জানিয়ে নেতা-কর্মীদের সংগঠিত হওয়ার আহ্বান জানান ফখরুল। তিনি বলেন, শর্টকাট কোনো রাস্তা নেই। একটা যুদ্ধ যখন করতে হবে সেই যুদ্ধে আপনাকে পুরোপুরিভাবে ইকুইপ্ট হতে হবে। যুদ্ধ করতেই হবে। এরা আপনাদের এমনি এমনি ক্ষমতা দিয়ে দেবে না। এরা একেবারে ডিক্টেটর বনে গেছে। কর্তৃত্ববাদী বনে গেছে এবং জানে যে, নির্বাচন করে তারা কোনো দিন জিততে পারবে না। সুতরাং নির্বাচন নির্বাচন খেলা করবে, নির্বাচনের নাটক করবে, তামাশা করবে। সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করে ওরা নিজেদের জয়ী করবে। যেমন ২০১৮-তে করেছে, যেমন ২০১৪-তে করেছে।

বিএনপিকে নিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্য প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ওদের কথার কী উত্তর দেব, ওদের কথায় তো ঘোড়াও হাসে। কখন কী বলে না বলে তারা নিজেরাও জানে না।

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের উদ্দেশে বিএনপির মহাসচিব বলেন, মিথ্যা কথা প্রচার করতে করতে তাঁরা এখন জিয়াউর রহমানকে মুক্তিযোদ্ধা তো দূরের কথা, স্বাধীনতার ঘোষক দূরের কথা, জিয়াউর রহমানকে পাকিস্তানের চর বানিয়েছেন। উনি এমনভাবে কথা বলেন, জোরেও না, রাগ করেও না। ঠান্ডা মেজাজে কথা বলেন, মনে হয় সত্যি কথাই বলছেন। আজকে স্বাধীনতার ৫০ বছর পরেও তারা ইতিহাসকে এভাবে বিকৃত করে চলেছে।

Nagad

জিয়া স্মৃতি পাঠাগারের সভাপতি আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. জহির দীপ্তির সঞ্চালনায় এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, বন ও পরিবেশ বিষয়জ সম্পাদক মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভুঁইয়া জুয়েল প্রমুখ।

সারাদিন/৯জুন/ আর