‘বিদেশ যেতে খালেদা জিয়াকে আদালতের অনুমতি নিতে হবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক:নিজস্ব প্রতিবেদক:
প্রকাশিত: ১০:২৩ অপরাহ্ণ, ০৪/০৫/২০২১

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বিদেশ নেয়ার জন্য তার পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো আবেদন করা হয়নি হয়নি জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, বিদেশ যেতে হলে তাকে আদালতের অনুমতি নিতে হবে।

মঙ্গলবার (৪ মে) রাজধানীর পূর্ব রাজাবাজারের একটি স্কুলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে কর্মহীন অসহায় মানুষের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘খালেদা জিয়া যে সাজা ভোগ করছিলেন পরিবারের নিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তা স্থগিত রেখে বাসায় থেকে চিকিৎসা নেয়ার সুবিধা করে দিয়েছেন। আমরা যতটুক জানি তিনি এখন রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে তার ইচ্ছা অনুযায়ী চিকিৎসা নিচ্ছেন। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা তাকে চিকিৎসা দিচ্ছেন এ পর্যন্ত আমাদের জানা।’

খালেদা জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে তাকে বিদেশে নিয়ে উন্নত চিকিৎসা করার জন্য সরকারের কাছে কোনো আবেদন করা হয়েছে কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তার পরিবারের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো আবেদন বা নিবেদন করা হয়নি। তিনি যেন দেশে উন্নত চিকিৎসা পান সেই ব্যবস্থা প্রধানমন্ত্রী করে দিয়েছেন।’

পরিবারের পক্ষ থেকে বিদেশে নিয়ে উন্নত চিকিৎসা করানোর জন্য সরকারের কাছে আবেদন করা হলে সরকার কি পদক্ষেপ নেবে? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটি আদালতের বিষয়। প্রধানমন্ত্রী যে ধারায় তার সাজা স্থগিত রেখে চিকিৎসা নেয়ার সুযোগ দিয়েছেন, এখন আরো কিছু পেতে হলে তাকে আদালতের মাধ্যমে আসতে হবে।

এদিকে হঠাৎ শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খালেদা জিয়াকে সোমবার বিকেলে সিসিইউতে স্থানান্তর করা হয়। এরপর থেকেই তাকে উন্নত চিকিৎসা দিতে দেশের বাইরে নেয়ার বিষয় নিয়ে নানা মহলে শুরু হয় গুঞ্জন।

Nagad

ওইদিন রাতে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে ফোন দিয়ে খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে অবগত করেন। ফোনালাপের পরপরই শুরু হয় গুঞ্জন।

গত ২৭ এপ্রিল রাতে খালেদা জিয়াকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

এর আগে, গত ১১ এপ্রিল খালেদা জিয়ার করোনা টেস্টের রিপোর্ট পজিটিভ আসার বিষয়টি ওইদিন বিকেলে নিশ্চিত করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।