দলে যোগ দিলেন জামায়াতের সাবেক নেতা ব্যারিস্টার রাজ্জাক

নিজস্ব প্রতিবেদক:নিজস্ব প্রতিবেদক:
প্রকাশিত: ৮:৪৯ অপরাহ্ণ, ০২/০৫/২০২১

জামায়াত ইসলামীর এক সময়ের প্রভাবশালী নেতা দীর্ঘদিন পর নতুন একটি রাজনৈতিক দলে যোগ দিয়েছেন। ব্যারিস্টার আবদুর রাজ্জাক আমার বাংলাদেশ (এবি) পার্টির প্রধান উপদেষ্টা হিসেবে যোগ দিয়েছেন। যিনি জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল ছিলেন।

রোববার (২ মে) এবি পার্টির প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে তার যোগদানের বিষয়টি প্রকাশিত হয়। এর আগে ২০১৯ সালে আব্দুর রাজ্জাক যুক্তরাজ্য থেকে জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল পদ থেকে পদত্যাগপত্র পেশ করেন জামায়াতের সাবেক আমির মকবুল আহমদের কাছে।

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময়কার ভূমিকার জন্য ক্ষমা চাওয়া এবং দল বিলুপ্তির পরামর্শ দিয়ে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী থেকে পদত্যাগ করেন ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাক। তিনি জামায়াতে ইসলামীর জয়েন্ট সেক্রেটারি জেনারেল পদে ছিলেন। ২০১৯ সালের পর তিনি আর কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সরাসরি যুক্ত ছিলেন না।

এবি পার্টির সদস্য সচিব ও সাবেক জামায়াত নেতা এবং শিবিরের সাবেক সভাপতি মজিবুর রহমান মঞ্জু বলেন, ব্যারিস্টার রাজ্জাককে পার্টির প্রধান উপদেষ্টা করা হয়েছে। আজ (রোববার) থেকে তিনি পার্টির উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

রোববার ভার্চুয়ালি সম্মেলনে লন্ডন থেকে যুক্ত হয়ে ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বাংলাদেশের মানুষের জন্য সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক সুবিচারের যে প্রতিশ্রুতি স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রে দেওয়া হয়েছে, জনগণের জন্য তা নিশ্চিত করার অঙ্গীকারের মাধ্যমে এবি পার্টির যাত্রা শুরু। বাংলাদেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের ধর্ম ইসলামে এই তিনটি অধিকারের সম্পূর্ণ নিশ্চয়তা দেওয়া হয়েছে।

এবি পার্টির সংবাদ সম্মেলনে যুক্ত হয়ে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, দলটি গত এক বছর জনকল্যানমূলক সহ সব ধরনের কাজ করার চেষ্টা করেছ। এটি পার্টির সঙ্গে যেসব নেতাকর্মী রয়েছেন প্রত্যেকে একটি কল্যাণরাষ্ট্র গড়ে তোলার জন্য চেষ্টা করছেন।

Nagad

প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের ২ মে ‘আমার বাংলাদেশ পার্টি’ (এবি পার্টি) নামে নতুন রাজনৈতিক দলের ঘোষণা দেয় বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরোধিতাকারী দল জামায়াতে ইসলামীর সংস্কারপন্থীরা।

সাবেক সচিব এএফএম সোলায়মান চৌধুরীকে আহ্বায়ক ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের সাবেক সভাপতি মুজিবুর রহমান মঞ্জুকে সদস্য সচিব করে ২২২ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি করা হয়।