হিট স্ট্রোক থেকে বাঁচতে যা করবেন

সারাদিন ডেস্কসারাদিন ডেস্ক
প্রকাশিত: ২:৩৪ অপরাহ্ণ, ২৬/০৪/২০২১

ক্রমেই বাড়ছে তাপমাত্রার পারদ। ৩৬ ডিগ্রি ছাড়িয়ে গেলেও দেখা নেই বৃষ্টির। গরমে ঘামে একেবারে ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা। সকাল ৮ টা বাজতে না বাজতেই চড়চড়িয়ে উঠছে রোদ। ১১ টারপর বাড়ি থেকে বেরোতে বেগ বেতে হচ্ছে। সেই সঙ্গে ডিহাইড্রেশন, ঠোঁট ফাটা এসব তো আছেই। এদিকে হু হু করে ছড়াচ্ছে করোনার সংক্রমণও। এছাড়াও অনেকেই গরম থেকে বেরিয়ে এসে ঠান্ডা পানি খাচ্ছেন। ফলে বাড়ছে হিটস্ট্রোকের সম্ভাবনা। এমনকী হিটস্ট্রোক থেকে মৃত্যুও হচ্ছে। এই গরমে সুস্থ থাকতে হলে কয়েকটি নিয়ম মেনে চলতেই হবে। কারণ হিটস্ট্রোক হলে শরীর খুবই দুর্বল হয়ে যায়। মাথা ঘোরা, বমি এসব তো থাকেই।

পেঁয়াজ

গরমকালে প্রতিদিন কাঁচা পেঁয়াজ খান। হতে পারে তা ভাতের সঙ্গে। কিংবা রুটি, মুড়ির সঙ্গেও খেতে পারেন। আর পেঁয়াজের জুসও বানিয়ে নিতে পারেন। জুস বানিয়ে ওর সঙ্গে খানিকটা মধু মিশিয়ে নিন। এতেও শরীরের তাপমাত্রা থাকবে নিয়ন্ত্রণে।

বাটারমিল্ক খান

বাটারমিল্ক শরীরের জন্য খুব ভালো। শরীরকে ঠান্ডা রাখে বাটার মিল্ক। কারণ এর মধ্যে থাকেন প্রোটিন, প্রোবায়োটিক, ভিটামিন। সেই সঙ্গে শরীরের তাপমাত্রাও থাকে নিয়ন্ত্রণে। যদি খুব বেশি গরম হয়ে যায় শরীর তাহলে খুব সহজেই ঠান্ডা করে দেয় বাটার মিল্ক।

ছাতুর শরবত

Nagad

গরমে খুব ভালো ছাতুর শরবত। এতে পেট ঠান্ডাও থাকে। অনেকক্ষণ খিদেও পায় না। শরীরের আর্দ্রতা বজায় রাখে। আর তাই গরমে ছাতুর শরবতের জুড়ি মেলা ভার।

আম পান্না

কাঁচা আম পুড়িয়ে বা সেদ্ধ করে জুসটা বের করে নিন। এবার ওই কাথ ছেঁকে নিয়ে ওর সঙ্গে জিরে গুঁড়ো, লঙ্কাগুঁড়ো, সামান্য লবণ আর চিনি মিশিয়ে নিলেই তৈরি আমের পান্না। উপর থেকে পুদিনা পাতা দিয়ে দিন।

কাঁচা মুগ

প্রতিদিন সকালে একবাটি করে ভেজানো মুগ খান। কিংবা অঙ্কুরিত মুগ, ধনেপাতা, পেঁয়াজ, লঙ্কা, লেবুর রস দিয়ে চাট বানিয়েও খেতে পারেন। এতে শরীর ভালো থাকবে।
সূত্র : এই সময়

সারাদিন/২৬ এপ্রিল/এএইচ