আত্রাইয়ে ধানে ব্লাস্ট রোগের আক্রমণ, দিশেহারা কৃষক

নঁওগা প্রতিনিধি:নঁওগা প্রতিনিধি:
প্রকাশিত: ৩:০৯ অপরাহ্ণ, ১৮/০৪/২০২১

নওগাঁর আত্রাইয়ে ইরি-বোরো ধানে ব্লাস্ট রোগের আক্রমণে কৃষকরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে। বিঘার পর বিঘা জমির ধান রাতারাতি মরে চিটা হয়ে যাচ্ছে। এ রোগ নিয়ন্ত্রণে কার্যকর কোন পদক্ষেপ নিতে পারছেন না কৃষি বিভাগ। ফলে কৃষকদের মাঝে দেখা দিয়েছে চরম হতাশার।

জানা গেছে, চলতি মৌসুমে এ উপজেলা প্রায় ২০ হাজার হেক্টর জমিতে ইরি বোরো ধানের চাষ করা হয়েছে। এবারে চলতি রবি মৌসুমে উপজেলার ৮ ইউনিয়নের বিভিন্ন মাঠ ঘুরে দেখা গেছে প্রায় মাঠগুলোতেই জিরাসাইল, ব্রি-২৯, ব্রি-২৮ ও কাটারিভোগ ধানের চাষ অধিকহারে করা হয়েছে। সেই সাথে এবারে নতুন জাতের ব্রি-৮১ ধানও ব্যাপকহারে চাষ করা হয়েছে। মাঠে মাঠে ধান পাকতে শুরু করেছে। এমন সময় ব্লাস্ট রোগে আক্রান্ত হওয়ায় কৃষক তাদের পাকা ধান ঘরে তোলা নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছে। এ বছর বোরোচাষের শুরু থেকেই আবহাওয়া অনুকূল থাকায় ইরি বোরা বাম্পার ফলনের সম্ভবনা থাকলেও বর্তমানে ব্লাস্ট রোগে আক্রান্ত হওয়ায় কৃষকদের মাঝে দেখা দিয়েছে হতাশার ছাপ।

উপজেলার নন্দনালী গ্রামের কৃষক জবেদ আলী প্রামানিক ৮বিঘা জমিতে ব্রি-৮১ জাতের ধানে রোপন করেছেন, তার প্রায় সব জমিতেই ব্লাস্ট রোগ আক্রমণ করেছে। কোন কীটনাশক প্রয়োগ করে প্রতিকার পাওয়া যাচ্ছে না বলে তিনি জানিয়েছেন। একই এলাকার অখিল চন্দ্র মন্ডল বলেন, আমার ২ বিঘা জমির ব্রি-৮১ ধানে ব্লাস্ট রোগ ধরেছে। বিভিন্ন প্রকার কীটনাশক প্রয়োগ করেও প্রতিকার করা যাচ্ছে না।

এ বিষয়ে আত্রাই উপজেলা কৃষি অফিসার কেএম কাউছার হোসেন বলেন, বোরো মৌসুমের শুরু থেকে আবহাওয়া ভালই ছিল। মাঝে কিছুটা প্রতিকূল আবহাওয়ার কারনে ধানে ব্লাস্ট রোগের দেখা দিয়েছে। এর প্রতিকারে আমরা যথাযথ ব্যবস্থা নিচ্ছি। সেই সাথে যেসব ধান ৮০ ভাগ পেকে গেছে ওই ধানগুলো দ্রুত কেটে নেয়ার জন্য কৃষকদের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।