ছেলের বউয়ের আত্মহত্যার দৃশ্য ভিডিও করলেন শ্বশুর-শাশুড়ি!

সারাদিন ডেস্কসারাদিন ডেস্ক
প্রকাশিত: ৯:৪৬ অপরাহ্ণ, ১৪/০৪/২০২১

গৃহবধূ ওড়নায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেও তাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেনি শ্বশুরবাড়ির লোকজন। উল্টো নিজেদের নিরপরাধ প্রমাণে বন্ধ দরজার পাশের জানলা দিয়ে সেই ঘটনার ভিডিও ধারণ করে তারা। এমনই ঘটনা ঘটেছে ভারত উত্তরপ্রদেশে।

নিজেদের নিরপরাধ প্রমাণ করার উদ্দেশ্যে এমনটা করেও শেষ রক্ষা হয়নি। সেই গৃহবধূর শ্বশুরবাড়ির সদস্যদের গ্রেপ্তার করেছে স্থানীয় পুলিশ।

রোববার (১১ এপ্রিল) সন্ধ্যায় মুজফ্ফরনগরের দাতিয়ানা গ্রামে ঘটেছে এ মর্মান্তিক ঘটনা। আত্মহত্যা করা ওই গৃহবধূর নাম কমল। কমলের বাবা-মায়ের দায়ের করা মামলায় পুলিশ তার শাশুড়ি ও শ্বশুরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তবে পলাতক আছে কমলের স্বামী ও দেবর।

পুলিশ জানিয়েছে, উত্তরপ্রদেশের মুজফফরনগরের বাসিন্দা কোমল তার স্বামী আশিস, আশিসের ভাই সচিন এবং শ্বশুর-শাশুড়ির সঙ্গে থাকতেন। এই আত্মহত্যার পর কোমলের বাবা অনিল কুমারের অভিযোগের ভিত্তিতে আশিস এবং সচিনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, কমল নিজের ঘরের দরজা বন্ধ করে নীল ওড়নায় গলায় ফাঁস লাগাচ্ছেন। তা দেখে তার শ্বশুরের মন্তব্য, ‘ও কিন্তু নিজেই নিজের গলায় ফাঁস দিচ্ছে’। কথা শুনে স্পষ্ট দেখা যায়, বউমার মৃত্যু দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখেও কোনও ভাবেই তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করেনি তারা। কেবল ভিডিও তুলে রেখেছিল আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য। যদিও ধরা পড়ার পরে অভিযুক্তদের দাবি, তারা প্রথমে ওই তরুণীকে আত্মহত্যা থেকে বিরত করার চেষ্টা করেছিল।

কমলের বাবা অনিল কুমার জানান, ২০১৯ সালে বিয়ে হয়েছিল আশিস ও কমলের। তারপর থেকেই শুরু হয়ে যায় অত্যাচার। একবার তাকে বাড়ি থেকেও বের করে দেওয়া হয়। পরে গ্রামের বয়স্ক মানুষদের অনুরোধে কমলকে শ্বশুরবাড়িতে ফিরে আসার অনুমতি দেওয়া হয়।
অভিযোগ, মাস দুয়েক আগে কমলকে তার বাবা-মায়ের কাছে থেকে প্রায় দেড় লাখ টাকা এনে দিতে বলে তার স্বামী। কিন্তু সেই টাকা দিতে অস্বীকার করায় ক্রমেই অত্যাচার বাড়তে থাকে। অবশেষে চরম পথ বেছে নেয় কমল। পুলিশ পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখছে বলে জানা গিয়েছে।

Nagad

সারাদিন/১৪এপ্রিল/এএইচ