বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিন দিতে ‘ইউজিসি’র উদ্যোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক:নিজস্ব প্রতিবেদক:
প্রকাশিত: ১২:৫৬ অপরাহ্ণ, ১৪/০৪/২০২১

দেশের সরকারী ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকদের করোনার টিকা দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ইউজিসি।

জানা যায়, স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কোভিড -১৯ সংক্রমণ রোধ করতে এবং একাডেমিক কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালিত হচ্ছে তা নিশ্চিত করার জন্য সমস্ত শিক্ষক, কর্মচারী এবং সরকারী ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিন কাভারেজের আওতায় আনার পরামর্শ দিয়েছেন। সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের উদ্যোগ নিয়েছে ইউজিসি।

ইতিমধ্যে ইউজিসি বিশ্ববিদ্যালয় ও ছাত্র-ছাত্রীদের তালিকা চেয়ে চিঠি দিয়েছে। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলির আবাসিক শিক্ষার্থীরা প্রথমে ভ্যাকসিনগুলি পাবে বলেও জানা যায়।

ইউজিসির সদস্য অধ্যাপক মোঃ আলমগীর বলেন, দেশের সকল উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সকল শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের টিকা দেওয়ার পরে বিশ্ববিদ্যালয়গুলি আবার চালু করা নিরাপদ হবে।

জানা যায়, দেশে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে কলেজগুলি ব্যতীত ৪৬টি সরকারী এবং ১০৬টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রায় সাত লাখ শিক্ষার্থী এবং ত্রিশ হাজার শিক্ষক রয়েছেন। সরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলির মধ্যে কেবল এক লাখ ৩০,০০০ শিক্ষার্থী ছাত্রাবাসে অবস্থান করছে।

সর্বশেষ ইউজিসির তথ্য অনুসারে, দেড় লক্ষাধিক শিক্ষার্থীর মধ্যে প্রায় ৫৩,০০০ শিক্ষার্থী ও শিক্ষকের নাম ইউজিসিতে জমা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ইউজিসি এখনও সমস্ত পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আবাসিক শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকদের তালিকা পেতে পারেনি। ৩৬টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় তাদের তালিকা প্রেরণ করেছে তবে এর বেশিরভাগেরই প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নেই বলেও জানা যায়।

Nagad

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মোঃ আখতারুজ্জামান বলছেন, তাঁর বিশ্ববিদ্যালয় তালিকা প্রস্তুত করেছে এবং শিগগিরই তা পাঠিয়ে দেবে।

এদিকে দেশজুড়ে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভের মুখে, সরকার এর আগে ২৪ মে সরকারী ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় পুনরায় চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলির ছাত্রাবাসগুলি ১ মে থেকে পুনরায় চালু হবে।

শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দিপু মনি বলেছেন, সরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলির সকল আবাসিক শিক্ষার্থীদের ছাত্রাবাস আবার চালু করার আগে টিকা দেওয়া হবে। বাংলাদেশের ভয়ঙ্কর কোভিড -১৯-এর প্রাদুর্ভাবের মধ্যে গত বছর মার্চ মাসে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হয়েছিল।

সারাদিন/১৪ এপ্রিল