সুদের টাকার জন্য পাঁচজনকে ছুরিকাঘাত

সিরাজগঞ্জ সংবাদদাতা:সিরাজগঞ্জ সংবাদদাতা:
প্রকাশিত: ১২:১৭ অপরাহ্ণ, ১২/০৪/২০২১

সুদের টাকার জন্য সিরাজগঞ্জ সদর থানার পাশের মিলনমোড় এলাকায় পাঁচজনকে ছুরিকাঘাতের ঘটনা ঘটেছে।এদের মধ্যে দু’জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। রোববার (১১ এপ্রিল) রাত ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন- শহরের ভাঙ্গাবাড়ি মহল্লার মিলন মোড় এলাকার মো. আওয়াল হোসেনের ছেলে সজীব (২২), আলম হোসেনের ছেলে মিলন (২৩), রঞ্জু আহমেদের ছেলে সংগ্রাম (২৩), মৃত শাহজামালের ছেলে রাজু (২৮) ও মৃত মোসলেম উদ্দিনের ছেলে হৃদয় (১৮)।

 

আশঙ্কাজনক অবস্থায় সজীব ও মিলন নামের ওই দু’জনকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বাকি ৩ জন সিরাজগঞ্জ ২৫০শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত রাজু আহমেদ জানান, রাত নয়টার দিকে ভাঙ্গাবাড়ি মিলন মোড় এলাকার পাশে খান সাহেবের মাঠ এলাকায় মিলনের কাছে দেয়া সুদের টাকা চাইতে যায় শহীদুল ইসলামের ছেলে শোভন ও জুবলীবাগান এলাকার সেলিমের ছেলে দিলসহ কয়েকজন। সেখানে থাকা রাজুসহ আহত কয়েকজন শোভনকে ক্লাবে বসে বিষয়টি মেটানো যাবে জানায়। এ কথা বলার সঙ্গে সঙ্গে শোভন তার কাছে থাকা চাইনিজ চাকু দিয়ে প্রথমে মিলনের পেটে ছুরিকাঘাত করে। পরে একে একে সজীব, রাজু, হৃদয় ও সংগ্রামকেও ছুরিকাঘাত করেন।

 

Nagad

ছুরিকাঘাতে মিলনের ভুড়ি বের হয়ে যায় এবং সজীবের আঘাত কিডনিতে গিয়ে লাগে। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় এই দুজনকে সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বগুড়ায় স্থানান্তর করা হয়। শোভন সুদের কারবার ছাড়াও মাদক চোরাকারবারে যুক্ত বলে জানায় রাজু।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ভাঙ্গাবাড়ি মিলন মোড় এলাকার আলম হোসেনের ছেলে মিলনকে তিন হাজার টাকা সুদের ওপরে দেন শোভন। এর মধ্যে মিলন ১৬শ টাকা পরিশোধ করলেও বাকি টাকা দিতে দেরি হচ্ছিল। এ নিয়ে তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে শোভন পাঁচজনকে ছুরিকাঘাত করে।

সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. মো. রোকনুজ্জামান বলেন, রাত ৯টার দিকে ৫ জনকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়। সবাই ছুরিকাঘাতে আহত। এদের মধ্যে ৩ জন এখানে চিকিৎসাধীন আছেন ও দুজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বগুড়া পাঠানো হয়েছে।

সিরাজগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দীন ফারুকী বলেন, খান সাহেবের মাঠ এলাকার মৃত শহীদুল ইসলামের ছেলে শোভন (৩৪) মিলনকে ৩ হাজার টাকা সুদের ওপর দেন। এর মধ্যে মিলন ১৬শ টাকা পরিশোধ করলেও ১৪শ টাকা পরিশোধ করতে বিলম্ব হচ্ছিল। এর জেরেই কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শোভন এই ঘটনা ঘটান। খবর পেয়ে হাসপাতাল ও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। তবে থানায় অভিযোগ দিতে এলে মামলা নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

সারাদিন/১২এপ্রিল/এএইচ