ভোলায় করোনায় স্কুল শিক্ষকের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ৩২

ভোলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে এবিএম সামসুল হুদা (৭৫) নামে এক প্রাক্তন মাধ্যমিক স্কুল শিক্ষকের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার রাত ১২ টার দিকে ভোলা ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। মৃত সামসুল হুদা সদর উপজেলার মুসলমান পাড়া এলাকার মৃত সামসুল রহমানের ছেলে এবং তিনি শহরের মাসুমা খানম বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের গণিতের প্রাক্তন শিক্ষক ছিলেন। শিক্ষার্থীদের কাছে তিনি “হুদা স্যার” নামে সুপরিচিত ছিলেন। এ নিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে জেলায় মোট মৃত্যু হয়েছে ১১ জনের।

করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ডের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা: জয়ন্ত সাহা মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, গত ৫ এপ্রিল দুপুরে করোনা আক্রান্ত সামসুল হুদা প্রচণ্ড শ্বাসকষ্ট নিয়ে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি হন। ৬ এপ্রিল রাত ১২টার দিকে চিকিৎসারত অবস্থায় তিনি মারা যান।

এদিকে গত ২৪ ঘন্টায় ভোলায় ৯৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করে নতুন আরো ৩২ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ২৮ জন ভোলা সদর, ২ জন লালমোহন ও ২ জন তজুমদ্দিন উপজেলার বাসিন্দা। এনিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ২৫৫ জনে দাঁড়িয়েছে। মঙ্গলবার রাতে ভোলার সিভিল সার্জন দপ্তর সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানায়, ভোলায় করোনা আক্রান্ত ১ হাজার ২৫৫ জনের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৭ জন। এর মধ্যে ভোলা সদর উপজেলায় আক্রান্ত ৭৯৭ জনের মধ্যে সুস্থ ৬১৯ জন। দৌলতখানে আক্রান্ত ৬২ জনের মধ্যে সুস্থ ৫৬ জন। বোরহানউদ্দিনে আক্রান্ত ১৩০ জনের মধ্যে সুস্থ ১১৩ জন, তজুমদ্দিন উপজেলায় আক্রান্ত ৫৪ জনের মধ্যে সুস্থ ৪৮ জন, লালমোহনে আক্রান্ত ১০৮ জনের মধ্যে সুস্থ ৭৩ জন, চরফ্যাশনে আক্রান্ত ৭১ জনের মধ্যে সুস্থ ৬৬ জন এবং মনপুরা উপজেলায় আক্রান্ত ৩৩ জনের মধ্যে সুস্থ ৩২ জন। আক্রান্তরা নিজ নিজ উপজেলা হাসপাতালের চিকিৎসকদের তত্বাবধানে আইসোলেশনে রয়েছেন। করোনা আক্রান্ত হয়ে মঙ্গলবার আরো ৩ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। সবমিলিয়ে বর্তমানে হাসপাতালে করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ডে ১৫ জন ভর্তি আছে।

এছাড়াও করোনা আক্রান্ত হয়ে ভোলা সদর, দৌলতখান, লালমোহন ও চরফ্যাশনে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। করোনা আক্রান্ত হয়ে জেলার বাইরে ও উপসর্গ নিয়ে আরো অন্তত ৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

সিভিল সার্জন অফিস সূত্র আরো জানায়, ভোলা থেকে এ পর্যন্ত ১০ হাজার ৮২৩ জনের নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবে পরীক্ষা করা হয়েছে।

Nagad