কোভিড প্রভাব মোকাবেলা

বিশ্বব্যাংকের কাছে ৫০০ মিলিয়ন ডলার সহায়তা চেয়েছেন অর্থমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক:নিজস্ব প্রতিবেদক:
প্রকাশিত: ১১:১৯ অপরাহ্ণ, ০৬/০৪/২০২১

ফাইল ছবি

করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারীর প্রভাব মোকাবেলায় বিশ্বব্যাংকের কাছ থেকে বাজেট সহায়তা হিসেবে ৫০০ মিলিয়ন ডলার চেয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল।

প্রস্তাবিত ‘ঢাকার আশেপাশের নদী ও খালের পরিবেশগত পুনরুদ্ধার সহায়তা’ প্রকল্পে পানি সরবরাহ ও স্যানিটেশনের জন্য ওয়াশিংটনভিত্তিক ঋণপ্রদানকারী সংস্থার কাছ থেকে আর্থিক সহায়তা চেয়েছেন অর্থমন্ত্রী। পরিবহন, নদীভিত্তিক পর্যটনের প্রসার, সুশাসন প্রতিষ্ঠা এবং বিভিন্ন কর্মক্ষেত্রে নারীদের অংশগ্রহণ বৃদ্ধির লক্ষ্যে নারী শিক্ষার্থীদের জন্য প্রযুক্তি ও বৃত্তি ভিত্তিক শিক্ষা গড়ে তোলার জন্য পরিবেশবান্ধব টেকসই অবকাঠামো নির্মাণ করা হয়েছে।

আইএমএফ ও বিশ্বব্যাংক গ্রুপের চলমান বসন্ত বৈঠক ২০২১-এর অংশ হিসেবে গতকাল সন্ধ্যায় বাংলাদেশের একটি প্রতিনিধিদল ও বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধিদলের মধ্যে ভার্চুয়াল বৈঠকে কামাল এই অনুরোধ জানান।

অর্থমন্ত্রী বাংলাদেশের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন এবং দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের বিশ্বব্যাংকের ভাইস-প্রেসিডেন্ট হার্টউইগ শাফার বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দেন। অর্থ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব আবদুর রউফ তালুকদার, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব ফাতিমা ইয়াসমিন এবং বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্সি তেম্বনও বৈঠকে যোগ দেন বলে আজ অর্থ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। বাংলাদেশের জন্য বাজেট সহায়তার এই অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধিদল বাংলাদেশকে বিষয়টি বিবেচনার আশ্বাস দেয়।

বৈঠকে অর্থমন্ত্রী উল্লেখ করেন, কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে বিশ্বের অন্যান্য অর্থনীতির মতো দেশের অর্থনীতিও ক্ষতিগ্রস্ত হলেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বের কারণে বাংলাদেশের অর্থনীতি স্বাচ্ছন্দ্যপূর্ণ ভালো অবস্থানে রয়েছে। মহামারীর তীব্রতা উপলব্ধি করে কামাল বলেন, প্রধানমন্ত্রী অর্থনৈতির সকল স্তরের জনগণের জন্য একের পর এক ১ লাখ ২৪ হাজার ৫৩ কোটি টাকার মোট ২৩টি প্রণোদনা প্যাকেজ প্রদান করেছেন যা ইতিহাসের একটি বিরল সাহসী পদক্ষেপ।

পাশাপাশি তিনি বলেন, দেশের সমস্ত নাগরিকের জন্য বিনামূল্যে কোভিড-১৯ টিকাদান কর্মসূচি চলছে।

Nagad

বৈঠকের একেবারে শুরুতে অর্থমন্ত্রী দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন নিশ্চিত করতে বাংলাদেশকে অব্যাহত সমর্থনের জন্য বিশ্বব্যাংককে ধন্যবাদ জানান। তিনি কোভিড-১৯ মহামারী মোকাবেলায় বিশ্বব্যাংকের সময়োপযোগী উদ্যোগের প্রশংসা করেন এবং ঋণপ্রদানকারী সংস্থাকে ‘প্রোগ্রামেটিক জবস ডেভেলপমেন্ট পলিসি ক্রেডিট (ডিপিসি)’ এর সমর্থন এবং কোভিড-১৯ টিকা সংগ্রহের জন্য বাংলাদেশকে ৫০০ মিলিয়ন ডলার সহায়তা প্রদানের জন্য ধন্যবাদ জানান।- সূত্র: বাসস