মাশরাফির ব্রেসলেটটি বিক্রি হয়েছে ৪২ লাখ টাকায়, আবার ফেরতও পাচ্ছেন

খেলাধূলা প্রতিবেদকখেলাধূলা প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ৪:৫২ পূর্বাহ্ণ, ১৮/০৫/২০২০

মাশরাফির হাতের ব্রেসলেটটি ৪২ লাখ টাকায় বিক্রি হয়েছে। অনেক প্রতিষ্ঠঅন এবং দুটি বেসরকারি ব্যাংক কিনতে চেয়েছিল তার ব্যবহৃত ব্রেসলেটটি। কিন্তু অকশন ফর অ্যাকশনের মাধ্যমে নিলামে তোলা হয়েছিল ব্রেসলেটটি। শেষ পর্যন্ত মাশরাফির ব্রেসলেটটি কিনে নিয়েছেন বাংলাদেশের আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন বাংলাদেশ লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স কোম্পানি অ্যাসোসিয়েশন (বিএলএফসিএ )।

তাদের পক্ষে নিলামে অংশ নেন সংস্থাটির চেয়ারম্যান মোমিনুল ইসলাম। তিনি আবার আইপিডিসি’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর।

এই অর্থ দিয়ে মাশরাফির ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’ ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে সহায়তা করা হবে করোনাভাইরাসের এই দুঃসময়ে অসহায় মানুষদের।

ক্রিকেট যারা নিয়মিত দেখেন বিশেষ করে যারা মাশরাফি বিন মর্তুজার ভক্ত তারা হয়তো খেয়াল করে থাকবেন তার হাতের ব্রেসলেটটি। আগে এটা নিয়ে না ভাবলেও ব্রেসলেটটি নিলামে তোলার পর থেকেই ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়।

ক্যারিয়ারের শুরুতে অবশ্য হাতে রিস্ট ব্যান্ড পরতেন মাশরাফি। পরে রুপার তৈরি একটি ব্রেসলেট পরা শুরু করেন; যার গায়ে খোদায় করে লেখা ‘মাশরাফি’। গত ১৮ বছর ধরেই সেটি শোভা পাচ্ছে ম্যাশের হাতে।

করোনাযুদ্ধে শামিল হতে সেই প্রিয় ব্রেসলেটটি নিলামে তোলেন জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক এই অধিনায়ক। নিলাম অনুষ্ঠিত হয় আয়োজক ‘অকশন ফর অ্যাকশন’-এর ফেসবুক পেজে। ব্রেসলেটটির ভিত্তিমূল্য ধরা হয় ৫ লাখ টাকা। রবিবার রাত পৌনে ১টার দিকে শেষ হয় ১ ঘণ্টা ২ মিনিট ধরে চলা অকশনটি।

Nagad

নিলাম অনুষ্ঠানে এসে মোমিনুল ইসলাম বলেন, ‘থ্যাঙ্কইউ মাশরাফি ভাই। আপনি এ দেশকে যে সম্মান এনে দিয়েছেন, সে সম্মানের প্রতিদান কোনোভাবেই হয় না। বাট এইটুকু করে (নিলামে অংশ নিয়ে) হলেও আমরা চেষ্টা করেছি আপনাকে একটুখানি হলেও সম্মান দিতে। গতকাল রাতে (শেনিবার রাতে) আমাকে আরিফ আর হোসেন কল দিয়ে বলেছিল, ম্যাশ ভাইয়ের একটা অকশন আছে, আপনাকে থাকতে হবে। তখন আমি ওকে কিছু বলিনি। সঙ্গে সঙ্গে আমাদের যত সিইও আছে সবাইকে মেসেজ দিয়েছি। সবাই একবাক্যে রাজি হয়ে গেলো। সবাই একটা বিষয় বলেছে যে, একটা ভালো কিছুতে যদি ব্যায় হয়, বাংলাদেশের ক্যাপ্টেনকে যদি একটা সম্মান দেখানো যায়, আর্থিক খাতে এর থেকে আর বালো কিছু হয় না। এই ব্রেসলেটটা হলো একটি স্যুভেনির। এটার দাম কোনোভাবেই হয় না। এটা অমূল্য। আমরা খুব খুশি যে, ৪০ লাখ টাকায় আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর অ্যাসোসিয়েশন থেকে বিড করেছি।’

বাড়তি দুই লাখের বিষয়ে মোমিনুল ইসলাম বলেন, ‘আইপিডিসির সঙ্গে অকশন ফর অ্যাকশনের একটা সমঝোতা আছে। ১০টা আইটেম পর্যন্ত আমরা ৫ পারসেন্ট করে এডিশনাল দেবো। সুতরাং, ৪০ লাখের সঙ্গে আরও ৫ পার্সেন্ট ২ লাখ। মোট ৪২ লাখ টাকায় এই ব্রেসলেটটা কিনতে চাচ্ছি।’

মাশরাফি হাতের ব্রেসলেট খুলে বলেন, এই যে এটা আপনার জন্য এই মুহূর্তে খুলে রেখে দিলাম। সে সঙ্গে বিএলএফসিএকে ধন্যবাদ জানিয়ে মোমিনুল ইসলামকে তিনি বলেন, ‘আপনাকে এবং আপনার সঙ্গে আরো যারা আছে, সবাইকে আমার অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে ধন্যবাদ। আর ব্রেসলেটটি আপনার কাছেই রাখেন। বড় অনুষ্ঠান করে আপনাকেই আবার দেওয়া হবে। ’

নিলাম সঞ্চালক আরিফ আর হোসাইন সর্বশেষ জানিয়েছেন, বিএলএফসিএ সোমবার ১২টার মধ্যেই ৪২ লাখ টাকার পুরো ফান্ড ট্রান্সফার করে দেবে। এরই মধ্যে তারা অ্যাকাউন্ট নাম্বার চেয়েছে।

এর আগে সাকিব আল হাসান তার ২০১৯ বিশ্বকাপের ব্যাট নিলামে ২০ লাখ টাকায় বিক্রি করেছেন। মুশফিকুর রহিমের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির ব্যাট কাল রাতে ১৭ লাখ টাকায় কিনে নেয় পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদির ফাউন্ডেশন।

সারাদিন/১৮মে/ আরটিএস