আজকের দিনের জাতীয় পর্যায়ের শীর্ষ ১০ খবর

সারাদিন ডেস্কসারাদিন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৯ এপ্রিল ২০২২, ৭:২১ অপরাহ্ণ

মিরপুর সড়কে যান চলাচল বন্ধ
নিউমার্কেট এলাকায় শিক্ষার্থী-ব্যবসায়ী দফায় দফায় সংঘর্ষ

নিউমার্কেটের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে ঢাকা কলেজের ছাত্রদের সংঘর্ষ গতকাল সোমবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে থামলেও আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে আবার শুরু হয়েছে। সেখানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর উপস্থিতি দেখা যাচ্ছে না।সংঘর্ষের কারণে রাজধানীর ব্যস্ত মিরপুর সড়কে যানচলাচল পুরোপুরি বন্ধ আছে।গতকাল রাতের সংঘর্ষের ঘটনার জের ধরে আজ সকাল সোয়া ১০টার দিকে আবার সংঘর্ষ শুরু হয়। দফায় দফায় সংঘর্ষ চলছে। ঢাকা কলেজের ছাত্রদের একটি অংশ কলেজের ছাদে, আরেকটি অংশ চন্দ্রিমা মার্কেটের সামনে অবস্থান নিয়েছে।অন্যদিকে, নিউমার্কেট ছাড়াও আশপাশের অন্যান্য মার্কেটের ব্যবসায়ীরা রাফিন প্লাজা, বলাকা সিনেমা হল ও গাউছিয়া মার্কেটের সামনে অবস্থান নিয়েছেন। সূত্র: প্রথম আলো

হুজিবির ৪৭ জনসহ এক বছরে ৪৪২ জঙ্গি গ্রেপ্তার

সারা দেশ থেকে গত এক বছরের কিছু বেশি সময়ে জঙ্গি সংগঠনের সদস্য বা এর সঙ্গে সম্পৃক্ত ৪৪২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী। তাঁদের মধ্যে হরকাতুল জিহাদ বাংলাদেশের (হুজিবি) প্রথম সারির ১১ জনসহ ৪৭ জন রয়েছেন। সর্বশেষ গত ১৪ এপ্রিল ভৈরব থেকে গ্রেপ্তার হন হুজিবির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মুফতি শফিকুল ইসলাম।শফিকুল ২১ বছর আত্মগোপনে ছিলেন।রমনা বটমূলে বোমা হামলা মামলায় তিনি মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় তাঁর যাবজ্জীবন সাজা হয়। হবিগঞ্জে সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এ এম এস কিবরিয়া হত্যা মামলায়ও তিনি অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি। সূত্র: কালের কণ্ঠ

ব্যক্তি পর্যায়ে ৬০ বিঘার ওপর জমি থাকলে বাজেয়াপ্ত
ব্যক্তি ও পরিবার পর্যায়ে ৬০ বিঘার বেশি জমি অর্জন না করার বিধান রেখে ভূমি সংস্কার আইন-২০২২ প্রণয়ন করা হচ্ছে। দেশের কোনো ব্যক্তি বা পরিবার এর বেশি জমির মালিক হলে অতিরিক্ত জমি সরকারের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করা হবে। বিশেষায়িত শিল্প, জনকল্যাণমুখী কার্যক্রমসহ বিশেষ ক্ষেত্রে ৬০ বিঘার বেশি জমি অর্জনের বিধান রাখা হয়েছে।ভূমি মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, চূড়ান্ত অনুমোদনের সুপারিশ করে আইনের খসড়াটি ভূমি মন্ত্রণালয় থেকে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠানো হয়েছে। আগামী মন্ত্রিসভায় খসড়াটি উপস্থাপন করা হতে পারে।
ভূমি সংস্কার আইনের খসড়ায় ছয়টি অধ্যায়ে ২৬টি ধারায় দুই থেকে আড়াইশ উপধারা রয়েছে। এর মধ্যে কৃষিজমি অর্জন সীমিতকরণ, স্থায়ী সম্পত্তির বেনামি লেনদেন/হস্তান্তর বন্ধ করা, বাস্তুভিটা, বর্গাধার, সায়রাত মহলের বিষয় প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে।ভূমি সচিব মো. মোস্তাফিজুর রহমান পিএএ সমকালকে বলেন, ভূমি সংস্কার অধ্যাদেশকে ভূমি সংস্কার আইনে পরিণত করা হচ্ছে। এতে জমির বিতরণ ব্যবস্থাকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। এর ফলে মুষ্টিমেয় মানুষ দেশের সিংহভাগ জমির মালিক হওয়ার সুযোগ পাবে না। এ কারণে ব্যক্তি ও পরিবার পর্যায়ে ৬০ বিঘা পর্যন্ত জমি ক্রয় বা অর্জনের সিলিং নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। সূত্র: সমকাল

বেহাল দশায় শ্রীলংকার হাসপাতাল
বিদ্যুৎ নেই, মোবাইলের আলোয় অপারেশন

শ্রীলংকার অর্র্থনৈতিক আর জ্বালানি সংকটের কালোছায়া পড়েছে দেশটির চিকিৎসা খাতে। ঠিক আগের সপ্তাহেই রাস্তায় নেমেছিলেন ডাক্তাররা। বলেছিলেন, সরকার দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে বিশাল প্রভাব পড়বে হাসপাতালগুলোয়। ব্যাঘাত ঘটবে চিকিৎসায়। চলমান রাজনৈতিক বিক্ষোভ, খাদ্য আর বিদ্যুৎ সংকটের কারণে নির্ঘুম রাত কাটছে বহু লংকানের। তিন বছর বয়সি মিরুর মা-বাবাও আছেন তাদের ভেতর। মারাত্মক মস্তিষ্কের টিউমারের সঙ্গে বসবাস তার। বেঁচে থাকার জন্য দরকার একটি ‘অ্যান্টি-কনভালসেন্ট’ ওষুধের। সেটি সময়মতো না খেলে ঘনঘন মৃগী হয় তার। ‘হাসপাতালে এখন আর পাওয়া যাচ্ছে না এই ওষুধ। আশপাশের ফার্মেসিগুলোতেও শেষ হয়ে গেছে’, বললেন হাতাশাগ্রস্ত এই বাবা। এখন টাকা থাকলেও পাওয়া যাচ্ছে না এই ওষুধ। অনেকটা একি অবস্থা ওয়াসান্তা সেনেভিরান্তের। সাত বছর বয়সি মেয়ের জন্য ‘ট্রাইপসেস’ ওষুধটি হন্য হয়ে খুঁজচ্ছেন। ‘কেমোথেরাপির ওষুধ এটি। হাসপাতাল, ফার্মেসি কোথাও নেই। কোনো সরকারি আমদানিকারক বা হাসপাতাল। কারোর কাছেই নেই’, বললেন এই হতভাগা বাবা। ‘কী করব আমি? আমার বাচ্ছা-তো বেশিদিন বাঁচবে না এই ওষুধ ছাড়া।’ অপরদিকে সংকটের এই বিরূপ প্রভাব পড়েছে হাসপাতালগুলোয়। ডাক্তাররা এখন চিকিৎসার সরঞ্জাম ফেলে না দিয়ে তা ধুয়ে, জীবাণুম–ক্তকরণ করে আবার ব্যবহার করছে অন্য রোগীদের ওপর। বিদ্যুতের অনুপস্থিতিতে মোবাইলের লাইট আর চার্জার ব্যবহার করে করছেন অস্ত্রোপচার। ‘আমি জানি এভাবে পরের রোগীর জীবন ঝুঁকি বাড়াচ্ছি। আমি একই সঙ্গে হতাশ এবং নিরূপায়’, বললেন এক ডাক্তার। যুগান্তর

আমাদের গ্যাস মজুদ আছে আর মাত্র ১০ বছরের—তারপর কী হবে?

গত দুই দশকে কোনো নতুন গ্যাসক্ষেত্র আবিষ্কার না হওয়ায় আগামী ১০ বছরের মধ্যেই প্রাকৃতিক গ্যাসের মজুদ ফুরিয়ে যাওয়ার মতো অনিশ্চিত ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ। বর্তমানে দেশের ২২টি গ্যাসক্ষেত্রে উত্তোলনযোগ্য গ্যাসের পরিমাণ ১০ লাখ কোটি ঘনফুট। সে তুলনায় বার্ষিক ব্যবহার বা চাহিদা হচ্ছে এক লাখ কোটি ঘনফুট।গত এক দশকে ব্যাপক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির কারণে চাহিদা তথা ব্যবহার বেড়েছে। এরমধ্যে গ্যাসের বড় কোনো মজুদও আবিষ্কার না হওয়ায়, বাংলাদেশে স্থানীয় গ্যাসের উৎপাদন ইতোমধ্যেই লক্ষণীয়ভাবে কমছে। ফলশ্রুতিতে, জীবাশ্ম জ্বালানি উৎসটির ঘাটতি দেখা দিয়েছে এবং বেড়েছে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসের (এলএনজি) আমদানি। সূত্র: বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড।

সমস্যা জর্জরিত ঢাকায় কেন জনস্রো
নানা নাগরিক সমস্যায় জর্জরিত দেশের রাজধানী ঢাকা। ইকোনমিস্ট ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের তালিকা অনুযায়ী বসবাসযোগ্যতার দিক দিয়ে বিশ্বের ১৪০টি শহরের মধ্যে ঢাকার অবস্থান ১৩৭তম। ভয়াবহ বায়ুদূষণের কারণে এ শহরের মানুষের গড় আয়ু কমে যাচ্ছে প্রায় সাড়ে সাত বছর। বিশ্বের মধ্যে সর্বোচ্চ শব্দদূষণের শিকার ঢাকার বাসিন্দারা। শেষ হয়ে যাচ্ছে শিশুদের খেলার জায়গা। বিলীন হচ্ছে সবুজ। যত্রতত্র ময়লা-আবর্জনা। হরহামেশা ঘটছে খুনোখুনি। সংকট বিশুদ্ধ পানির। মশার উৎপাতে অতিষ্ঠ জীবন। নেই হাঁটার উপযোগী ফুটপাথও। গণপরিবহন সংকট ও ভয়াবহ যানজটে নাভিশ্বাস নাগরিকদের। দূষণ ও অস্বাস্থ্যকর জীবনের কারণে ডাক্তার হয়েছে নগরবাসীর নিত্যসঙ্গী। সেই সঙ্গে বাড়ছে জীবনযাত্রার ব্যয়। তবু কমছে না ঢাকামুখী জনস্রোত। প্রতি বছর ছয় লাখের বেশি মানুষ যোগ হচ্ছে ঢাকার জনসংখ্যার সঙ্গে। অতিরিক্ত জনসংখ্যার কারণে প্রতিনিয়ত বাড়ছে নাগরিক সমস্যার পরিধি। সূত্র: বিডি প্রতিদিন।

ভারত থেকে কেন বিপুল পরিমাণে চুল পাচার করা হচ্ছে বাংলাদেশে?

ভারত থেকে বাংলাদেশে পাচারের সময় মানুষের একশো কেজির বেশি মানুষের চুল আটক করেছে সেদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী।ভারতীয় বার্তা সংস্থা পিটিআই জানাচ্ছে, মেঘালয় সীমান্ত এলাকা থেকে একশো কেজি চুল বাংলাদেশে পাচার করার সময় জব্দ করে বিএসএফ।
সংস্থাটি বলছে, ভারত থেকে কাটা বা ফেলে দেয়া চুল পাচারের ক্ষেত্রে মিয়ানমারকে ছাড়িয়ে নতুন ট্রানজিট হয়ে উঠেছে বাংলাদেশ। এসব চুল পরবর্তীতে চীনে চলে যাচ্ছে বলে তারা দাবি করেছে।
এর আগে বিভিন্ন ধরণের পণ্য বা মাদক পাচারের কথা শোনা গেলেও, মানুষের চুল পাচারের এ ঘটনা অনেকটাই অভিনব।মানুষের চুলের মত একটি পণ্য বাংলাদেশে পাচারের পেছনে কী কারণ রয়েছে? এই বিষয়টি অনুসন্ধান করেছে বিবিসি বাংলা।বাংলাদেশের শিল্প সংশ্লিষ্টরা বলছেন, গত এক দশকে বাংলাদেশে উইগ বা পরচুলার বিশাল শিল্প গড়ে উঠেছে। সব মিলিয়ে এই শিল্পে ৫০ হাজারের বেশি মানুষ কাজ করছেন। সূত্র: বিবিসি বাংলা ।

কাজের গতির সঙ্গে ঋণ ছাড়েও গতি

মহামারীর প্রভাব কাটিয়ে দেশের উন্নয়ন কাজে গতি আসার সঙ্গে বৈদেশিক ঋণ ছাড়েও গতি পেয়েছে। চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের তৃতীয় প্রান্তিক পর্যন্ত নয় মাসের হিসাবে দেখা যাচ্ছে, বৈদেশিক ঋণছাড় গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৬৪ শতাংশ বেশি।অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সর্বশেষ প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত জুলাই থকে মার্চ পর্যন্ত দাতা দেশ ও সংস্থা মিলে চলমান উন্নয়ন প্রকল্পের প্রতিশ্রুতির বিপরীতে ৬৭৯ কোটি ৬৮ লাখ ডলারের প্রকল্প সহায়তা ছাড় করেছে।গত অর্থবছরের প্রথম নয় মাসে এই অঙ্ক ছিল ৪৩৮ কোটি ৬ লাখ ডলার।সূত্র: বিডি নিউজ

তলিয়ে গেলো হাওরের আরও ১০০ হেক্টর জমির ধান

হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলায় নতুন করে আরও দুটি হাওরের প্রায় একশ’ হেক্টর বোরো ধানের জমি পানিতে তলিয়ে গেছে। এ নিয়ে তিন দিনে তলিয়ে গেছে পাঁচ হাওরের দুই শতাধিক হেক্টর বোরো জমির আধাপাকা ধান।সোমবার (১৮ এপ্রিল) উপজেলার এক নম্বর লাখাই ইউনিয়নের কৃষ্ণপুর ও সন্তোষপুরে পানি প্রবেশ করে। এর আগে গত দুই দিনে ইউনিয়নটির শিবপুর, সুজনপুর ও বারচর হাওরের শতাধিক হেক্টর জমির আধাপাকা ধান পানির নিচে তলিয়ে যায়।উপজেলা কৃষি বিভাগ জানিয়েছে, গত শনি ও রবিবার কালনী এবং মেঘনা নদীতে আসা জোয়ারের পানিতে লাখাই ইউনিয়নের শিবপুর, সুজনপুর ও বারচর হাওরের প্রায় ৭৫ হেক্টর জমি তলিয়ে যায়। সোমবার কৃষ্ণপুর ও সন্তোষপুরের হাওরে নতুন করে আরও শতাধিক হেক্টর জমির ধান পানিতে ডুবে গেছে। জমির ধান আধাপাকা হওয়ায় কৃষকরা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। তারা ধান পেকে যাওয়ার আগেই কেটে ঘরে তোলা শুরু করেছেন। সূত্র: বাংলানিউজ

আজকের দিনের জাতীয় পর্যায়ের শীর্ষ ১০ খবর

ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিউমার্কেটের ব্যবসায়ীদের চলমান সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। দ্রুত সময়ের মধ্যে সংঘাত নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হবে।শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান মঙ্গলবার জাগো নিউজকে এমন কথা বলেছেন।মঙ্গলবার সকাল ১০টার পর থেকে নিউমার্কেট এলাকায় ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের অবরোধের পর তাদের সঙ্গে ব্যবসায়ী ও দোকানের কর্মীদের সংঘর্ষ শুরু হয়।ঘর্ষের এক পর্যায়ে বেলা ১১টার পর থেকে ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা কলেজের গেটে এবং ব্যবসায়ীরা চন্দ্রিমা সুপার মার্কেটের সামনের সড়কে অবস্থান নেন। এরপর থেকে দফায় দফায় সংঘর্ষ চলছে।এরও আগে রাতের সংঘর্ষের জেরে সকাল থেকেই সায়েন্সল্যাব থেকে নীলক্ষেত পর্যন্ত রাস্তা অবরোধ করে রাখেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এর ফলে সায়েন্সল্যাব, আজিমপুর ও মুক্তি ও গণতন্ত্র তোরণের রাস্তায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। সূত্র: জাগো নিউজ

 

সারাদিন.১৯ এপ্রিল. আরএ