প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ট্রেন বরণ করেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী

জামালপুর সংবাদদাতাজামালপুর সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ২:৫৯ অপরাহ্ণ, ২৭/০১/২০২০

প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধনের পর ঢাকা থেকে জামালপুর রুটে চালু হলো আন্তঃনগর জামালপুর এক্সপ্রেস ট্রেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার (২৬ জানুয়ারি) সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে এটি উদ্বোধন করেন।

এই ট্রেনটি জেলায় দ্বিতীয় এসি ট্রেন হলেও তা সরিষাবাড়ী উপজেলা বাসীর দীর্ঘ প্রতীক্ষা ছিল। আর অবশেষে প্রথমবারের মতো নতুন এসি ট্রেন সুবিধা পেল।

জামালপুর-সরিষাবাড়ী থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু (পূর্ব) স্টেশন হয়ে লিঙ্ক রুটে সরাসরি ঢাকাগামী প্রথম ট্রেন এটি। ট্রেন উদ্বোধন উপলক্ষে জামালপুর রেলওয়ে জংশনে ও সরিষাবাড়ী মতিয়র রহমান তালুকদার রেলওয়ে স্টেশনে পৃথক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

নতুন আন্তঃনগর ট্রেনের উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে উপজেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত বিশাল আলোচনা সভায় তথ্য প্রতিমন্ত্রী, এএসপি শিবলি সাদিক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিহাব উদ্দিন আহমদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছানোয়ার হোসেন বাদশা, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জলী আক্তারসহ প্রশাসনিক কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতাকর্মী, মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিকসহ সর্বস্তরের মানুষ অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন।

তথ্য প্রতিমন্ত্রী আলহাজ ডাঃ মুরাদ হাসান বলেছেন, ভূয়াপুর বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব-সরিষাবাড়ী-জামালপুরের ৪০কিঃমিঃ রেল সংযোগ পথের স্বপ্ন দেখেছিলেন প্রয়াত মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক বীরমুক্তিযোদ্ধা এ্যাডঃ মতিয়র রহমান তালুকদার। আর তা পূরন করতে তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডাঃ মুরাদ হাসানের প্রচেষ্টায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করেছেন।

তিনি আরও বলেন, অ্যাডভোকেট মতিয়র রহমান তালুকদার স্বপ্ন দেখেছিলেন বলেই ২১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে রেলপথ নির্মান শেষে ৬২০ আসন বিশিষ্ট ‘জামালপুর এক্সপ্রেস’ নামক একটি অত্যাধুনিক নতুন আন্তঃনগর ট্রেন মুজিবর্ষে গনভবন হতে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে প্রধান অতিথি হিসেবে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যুক্ত থেকে সরাসরি অংশ গ্রহন করে জামালপুরবাসীকে উপহার দিয়ে কৃতজ্ঞতায় আবদ্ধ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার সকাল ১১ টা ১৩মিনিটে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে জামালপুর এক্সপ্রেস ট্রেনসহ কয়েকটি প্রকল্প উদ্বোধন করেন। তারপর ফুলে ফুলে সজ্জিত ট্রেনটি জামালপুর জংশন থেকে দুপুর ১ টা ২০ মিনিটে মতিয়র রহমান তালুকদার স্টেশন পৌঁছায়। স্থানীয় সংসদ সদস্য ও তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান জাতীয় পতাকা হাতে ট্রেনটিকে স্বাগত জানান। এসময় রেলপথের দুই পাশে হাজার হাজার উৎসুক জনতা করতালি দিয়ে সেখানে অভ্যর্থনা জানান।

রেলওয়ে সূত্র জানায়, ৬২০ আসনের ‘জামালপুর এক্সপ্রেস’ ট্রেনে ১১০টি এসি সিট ও ৫১০টি শোভন চেয়ার রয়েছে। কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে সকাল সাড়ে ১০টায় জামালপুরের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসবে ট্রেনটি এবং টাঙ্গাইল ও বঙ্গবন্ধু সেতু (পূর্ব) স্টেশন হয়ে সরিষাবাড়ী স্টেশনে বিকাল ৩টা ১৩ মিনিটে ও জামালপুর জংশনে বিকেল ৪ টা ৫ মিনিটে পৌঁছাবে। জামালপুর জংশন থেকে বিকাল পৌনে ৬টায় ও সরিষাবাড়ী স্টেশন থেকে সন্ধ্যা পৌনে সাতটায় রওনা করে পুনরায় বঙ্গবন্ধু সেতু (পূর্ব) ও টাঙ্গাইল স্টেশন হয়ে ট্রেনটি রাত সাড়ে ১১টায় ঢাকায় পৌঁছাবে। ঢাকা থেকে জামালপুর ও সরিষাবাড়ী পর্যন্ত প্রতিটি এসি সিট ৩৮৬ টাকা ও শোভন চেয়ার ২০০ টাকা করে মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে। এটি প্রতি রবিবার সাপ্তাহিক বন্ধ থাকবে।

সূত্রে জানা গেছে, যমুনা নদীর ওপর বঙ্গবন্ধু বহুমুখী সেতু উদ্বোধনের পর জামালপুর-সরিষাবাড়ী তথা ময়মনসিংহ বিভাগের প্রায় দুই কোটি মানুষের উত্তরবঙ্গ সরাসরি যাতায়াত সুবিধার জন্য লিঙ্ক রেলরুট বাস্তবায়ন সংগ্রাম পরিষদ গঠন করছিলেন তৎকালীন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মুজিবনগর সরকারের বিচারপতি এডভোকেট মতিয়র রহমান তালুকদার।

সারাদিন/২৭জানুয়ারি/টিআর/এস