‘এই মুহূর্তে নতুন সড়ক আইন সংশোধন করা সম্ভব নয়’

নিজস্ব প্রতিনিধিনিজস্ব প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ৫:০৯ অপরাহ্ণ, ২৫/১১/২০১৯

এই মুহূর্তে নতুন সড়ক আইন সংশোধন করা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, নতুন সড়ক পরিবহন আইন বহাল রেখেই সহনীয় মাত্রায় তা প্রয়োগ করা হবে। সড়ক আইনের সমস্যা সমাধানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

সোমবার (২৫ নভেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সম্মেলন কক্ষে সমসাময়িক ইস্যু নিয়ে ডাকা সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, যখন পরিবহন নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করে আমার সঙ্গে আলোচনা করেছেন। তারা তাদের দাবি জানিয়েছেন, আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখব। এই মুহূর্তে কিছু করা সম্ভব নয়। সংসদে যেহেতু আইন পাস হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গেও বিষয়টি আলোচনা করব।

আইন সংশোধনীর ইঙ্গিত ও বাস্তবায়নে পিছু হটায় এটি মেনে না চলার প্রবণতায় জনমনে কোনো প্রভাব পড়বে কিনা- এমন এক প্রশ্নের জবাবে প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, আইন পরিবর্তন কোথায় হলো? জাতীয় সংসদে আইনটি পাস হয়েছে। পরিবর্তন করতে হলে সংসদেই আবার নিয়ে যেতে হবে। সেটা আমরা বলছি তারা (পরিবহন সংশ্লিষ্টরা) দাবি করেছে, সেটা আমরা যাচাই-বাছাই করে দেখছি।

আইন তো আর কোরআন আর বাইবেল নয় যে, এটাতে সংশোধনের সুযোগ নেই। যদি যাচাই-বাছাই করে সংশোধনের মতো বাস্তব কোনো যুক্তিসঙ্গত, ন্যায়সঙ্গত বিষয় থাকে সেটা অবশ্যই বিবেচনা করা হবে। কিন্তু যাচাই-বাছাই করার আগে তাদের দাবি নিয়ে আমি তো এখন হুট করে কোনো মন্তব্য করতে পারি না, যে আইনের পরিবর্তন বা সংশোধন হবে’ যোগ করে বলেন তিনি।

আইন মেনে না চলার প্রবণতার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি এখন আইন মেনে চলার প্রবণতা বাড়ছে। একটা ভয়ভীতি কাজ করছে। যে যাই বলুক আইনের প্রয়োগটা বন্ধ করা হয়নি। কিছু কিছু বিষয়ে বাস্তবতার স্বার্থে শৈথিল্য দেখানো হয়েছে।‘

লাইসেন্স দেয়ার ক্ষেত্রে বিলম্বের বিষয়ে তিনি বলেন, দ্রুত বিআরটিএতে এ বিষয়ে কাজ হবে। জনবল বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে; দ্রুত জনবল সংকট সমাধান হবে। চালক তৈরির জন্য বিরাট প্রকল্প আছে, বিআরটিসি ও বিআরটিএ উদ্যোগ নিয়েছে। দক্ষ চালক সৃষ্টিতে পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের জন্যই সড়ক আইন হয়নি বলেও মন্তব্য করেন তিনি।