আমিন আমিন ধ্বনিতে শেষ হলো বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয়পর্ব

নিজস্ব প্রতিবেদকনিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১:৪৮ অপরাহ্ণ, ১৯/০১/২০২০

মুসলিম উম্মাহ’র শান্তি, জীবনের গুনাহ্ মাফ, রোগ থেকে মুক্তি কামনার মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে তাবলিগ জামাতের তিনদিনের বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয়পর্ব তথা এবারের ৫৫তম বিশ্ব ইজতেমা। টঙ্গীর তুরাগ নদের তীরে তাবলিগ জামাতের এই বিশ্ব সম্মিলন এবারও দুই পর্বে অনুষ্ঠিত হয়। শেষ পর্বে অংশ নেন দিল্লির মাওলানা সাদ কান্ধলভির অনুসারীরা। আর প্রথম পর্বে ইজতেমা করেন সাদবিরোধীরা।

রোববার (১৯ জানুয়ারি) বেলা পৌনে ১২টার দিকে অনুষ্ঠিত আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন ভারতের মাওলানা জামশেদ। মোনাজাতের আগে হেদায়াতি বয়ান হয়।

দ্বিতীয় পর্বের আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে সকাল থেকেই হাজার হাজার মুসল্লি ইজতেমায় অংশ নেন। সকাল ১০টার আগেই ইজতেমা ময়দান কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়।
শুরুতে কোরআনের আয়াত ও পরে উর্দু ভাষায় পরিচালিত আখেরি মোনাজাতে তিনি বিশ্বের সকল মুসলমানকে মাফ, ইসলামের প্রতি মেহনতকে, ইজতেমাকে কবুল করার জন্য এবং ঈমানকে হেফাজত, আমল ঠিক রেখে দ্বীনের পথে চলার জন্য মহান আল্লাহতায়ালার রহমত কামনা করেন।

মাইকে মোনজাত শুরুর ঘোষণা দেয়া হলে ইজতেমাস্থল ও আশপাশের বিস্তীর্ণ এলাকা নেমে আসে নিরবতা। মোনাজাত শুরুর পর আমিন, আমিন, হে আল্লাহ ইত্যাদি ধ্বনিতে মুখরিত হয় ইজতেমা ময়দানসহ তৎসংলগ্ন এলাকা। মোনাজাতের সময় অনেক মুসল্লিরা জীবনের পাপ থেকে মুক্তির আশায় আল্লাহর নিকট কান্নাকাটি করে প্রার্থনা করেন।

এদিকে রোববার ভোর থেকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হয়। ময়মনসিংহ ও টাঙ্গাইল থেকে আসা গাড়িগুলো ভোগড়া বাইপাস এলাকায় আটকে দেয়া হয়। সিলেট রুটের গাড়িগুলো মিরের বাজার এলাকায় নিয়ন্ত্রণ করা হয়। এছাড়া সাভার ও আশুলিয়া থেকে আসা গাড়িগুলো কামারপাড়া ব্রিজের আগেই থামানো হয়।

সারাদিন/১৯ জানুয়ারি/ আরটিএস

Nagad