ওজন কমানোর জন্য কি করা উচিত, রইল কিছু টিপস

লাইফস্টাইল ডেস্কলাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ৮:৪৩ অপরাহ্ণ, ০৭/০১/২০২০

দেশে কিংবা বিদেশে মোটা মানুষের সংখ্যাটা বেড়েই চলছে। ব্যক্তি জীবনে অতিরিক্ত ওজন কিন্তু মানুষকে বিপদে ফেলে দেয়। শুরু হয়, বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা, মানসিক অশান্তি, অবসাদ, ক্লান্তি-দুর্বলতা। কিন্তু অনেকেই এখন ওজন কমাতে চান। কিভাবে সেটি হবে।

অতিরিক্ত ওজন কমাতে চাইলে খাদ্যাভাস পরিবর্তন এবং নিয়মিত ব্যায়াম করা জরুরি বলে মনে করেন বিষেজ্ঞরা। এছাড়াও কি করা যায়।

১ম: প্রতি সপ্তাহে ওজন কমান

ওজন হ্রাসের টার্গেট নিন। প্রতি মাসে ওজন কমানোর পরিকল্পনায় অলসতা আসতে পারে। তাই সপ্তাহের মধ্যে কিছুটা সফলতা মিললে উৎসাহ বাড়বে। ধীরে ধীরে ভালো অভ্যাসগুলো আয়ত্ত করবেন। ফল-সবজিতে মন দিন। সপ্তাহে যেন অন্তত এক পাউন্ড ওজন কমে সেদিকে খেয়াল রাখুন।

২য়: তিন বেলার খাবার

দিনের মূল খাবারগুলো এড়িয়ে যাবেন না।। কাজেই বাদ না দিয়ে পরিমাণে অল্প খান। বাদ দিলে রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা আকস্মিক বাড়তে পারে। তাই তিন বেলার খাবার কখনো বাদ দেবেন না।

৩য়: জটিল কার্বোহাইড্রেট

আপনার খাবারের পাতে শস্যদানা, শিম, ফল ও মিষ্টি আলু জাতীয় খাবারের পরিমাণ বৃদ্ধি করতে হবে। এ ধরনের খাবার আমরা এমনিতেই খেয়ে থাকি। কিন্তু নিয়মিত খাওয়ার ওপর জোর দিন।

৪র্থ: স্বাস্থ্যকর প্রোটিন

প্রোটিন দেহের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য অত্যাবশ্যক। যতবার খাবেন ততবারই ৭-১০ গ্রাম প্রোটিন যেন পেটে পড়ে সেদিকে খেয়াল রাখবেন। দেড় টেবিল চামচ অলিভ অয়েল, একটি অ্যাভোকাডোর চার ভাগের এক ভাগ কিংবা দুই টেবিল চামচ বাদাম থেকে সমপরিমাণ প্রোটিন মিলতে পারে।

৫ম: জাংক ফুডকে ‘না’

ধীরে ধীরে অস্বাস্থ্যকর খাবারের লোভ ত্যাগ করতে হবে। ফাস্ট ফুড কিংবা জাংক ফুডকে ‘না’ বলুন। যারা এর ভক্ত তাদের জন্য আরো অনেক সুস্বাদু ও স্বাস্থ্যকর খাবার পড়ে রয়েছে। সেদিকে এগিয়ে যান। কিছু দিন খেলেই আর আজেবাজে খাবারের কথা মনে আসবে না।

৬ষ্ঠ: প্রচুর পানি পান করুন

প্রতিদিন প্রচুর পানি পান করুন। এটা আপনার দেহের মেটাবলিজম বাড়ায় ও রক্তের ক্ষতিকর উপাদান প্রস্রাবের সঙ্গে বের করে দেয়। মেটাবলিজম বাড়ার ফলে দেহে চর্বি জমতে পারে না ও বাড়তি চর্বি ঝরে যায়।

৭ম: প্রতিদিন ফল ও সবজি খান

প্রতিদিন সকাল ও সন্ধ্যায় এক বাটি ভর্তি ফল ও সবজি খাওয়ার চেষ্টা করুন। এতে আপনার শরীর পাবে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, মিনারেল ও ভিটামিন। আর এগুলো আপনার রক্তের মেটাবলিজম বাড়িয়ে পেটের চর্বি কমিয়ে আনবে সহজেই।

৮ম: খাবারে অতিরিক্ত মশলা নয়

রান্নায় অতিরিক্ত মশলা ব্যবহার করা ঠিক নয়। তবে কিছু মশলা ওজন কমাতে সাহায্য করে ম্যাজিকের মতো। রান্নার ব্যবহার করুন দারুচিনি, আদা ও গোলমরিচ। এগুলো আপনার রক্তে শর্করার পরিমাণ কমাবে ও পেটের মেদ কমাতে সাহায্য করবে।

৯ম: চিনিযুক্ত খাবার খাবেন না

মিষ্টি বা মিষ্টি জাতীয় খাবার, কোল্ড ড্রিংকস এবং তেলে ভাজা স্ন্যাক্স থেকে দূরে থাকুন। কেননা এ জাতীয় খাবারগুলো আপনার শরীরের বিভিন্ন অংশে, বিশেষত পেট ও উরুতে খুব দ্রুত চর্বি জমিয়ে ফেলে। তাই এগুলো খাওয়ার পরিবর্তে ফল খান।

১০ম: মানসিক চাপের বোঝা বইবেন না

মানসিক চাপ যতটা পারবেন কম নেওয়ার চেষ্টা করুন। কারণ মানসিক চাপের ফলে আপনার শরীরে নানা সমস্যা তৈরি হতে পারে। ফলে শরীরের পাচন ক্ষমতা কমে যায় এবং শরীরে মেদ জমতে শুরু করে।

সারাদিন/৭ জানুয়ারি/ আরটিএস