ইরাকে রকেট হামলায় ইরানের শীর্ষ জেনারেল সোলাইমানি নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্কআন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:৪০ পূর্বাহ্ণ, ০৩/০১/২০২০

ইরাকের রাজধানী বাগদাদে এক রকেট হামলায় ইরানের বিশেষ বাহিনী রেভ্যুলশনারি গার্ডের প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানি নিহত হয়েছেন। তিনি ছিলেন ইরানের এলিট বাহিনীর কুদস ব্রিগেটের প্রধান।

বাগদাদের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এই হামলায় আরও ছয়জন হাশদ আশ শাবি’র সদস্য নিহত হয়েছেন। কারা এই রকেট হামলা করেছে তা এখনও কোনও পক্ষ থেকে স্বীকার করা হয়নি। তবে শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) বিপ্লবী বাহিনীটির পক্ষ থেকে এই তথ্য নিশ্চিত করা হয়।

ইরানি সংবাদ মাধ্যম পার্সটুডে জানিয়েছে, ইরাকের রাজধানী বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে শুক্রবার ভোররাতে রকেট হামলা হয়েছে। অজ্ঞাত অবস্থান থেকে বিমানবন্দর লক্ষ্য করে অন্তত চারটি রকেট নিক্ষেপ করা হয়। এর ফলে সেখানে মোতায়েন জনপ্রিয় স্বেচ্ছাসেবী বাহিনী হাশদ আশ-শাবির অন্তত পাঁচ জওয়ান নিহত হয়েছেন। এছাড়া নিহত হয়েছেন পিএমইউ সেকেন্ড-ইন-কমান্ড আবু মাহদি আল-মুহানদিসও।

জানা গেছে, ইরানের আঞ্চলিক শক্তি বৃদ্ধির প্রধান কারিগর জেনারেল কাসেমি। তিনি ইরানের বিপ্লবী বাহিনীর সবচেয়ে প্রভাবশালী কমান্ডার। সিরিয়া ও ইরাকে জঙ্গিবাদবিরোধী লড়াইয়ে তার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। ২০১৮ সালের অক্টোবরেও তাকে হত্যাচেষ্টা বানচাল করে দেওয়ার দাবি করেছিল ইরান।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ওই রকেট হামলা চালানো হয়। ওই হামলাতেই সোলেমানিসহ আটজন প্রাণ হারান। এছাড়া ওই হামলায় ইরাকের হাশদ আশ-শাবি বা পুপুলার মোবিলাইজেশন ইউনিটস সংক্ষেপে পিএমইউ সেকেন্ড-ইন-কমান্ড আবু মাহদি আল-মুহানদিসও নিহত হয়েছেন।

বিপ্লবী বাহিনীর পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, বেশ কয়েকজন ইরাকিকে আটকও রাখা হয়েছে।

গত ১৫ বছর ধরে মেজর জেনারেল কাসেম সুলাইমানি একজন গুরুত্বপূর্ণ সামরিক কৌশলী হিসেবে তৈরি হয়েছেন। ইরাক ও সিরিয়ায় ক্ষমতা নির্ণয়েও তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের উপস্থিতি সুসংহত করতে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি।

সারাদিন/৩ডিসেম্বর/টিআর