ড্যাফোডিলে চার দিনব্যাপী ‘ড্যাফোডিলআইমুন-২০২০’ শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদকনিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ৭:২৮ অপরাহ্ণ, ০২/০১/২০২০

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাস আশুলিয়ায় শুরু হয়েছে চার দিনব্যাপী (২-৫ জানুয়ারি) ‘ড্যাফোডিলআইমুন-২০২০’।

বৃহস্পতিবার (২ জানুয়ারি) সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বাধীনতা মিলনায়তনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধন করেন বন পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাহমুদ হাসান।

এ সময় সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মাহবুব-উল-হক মজুমদার। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডেভলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের প্রধান ও সহকারী অধ্যাপক মো. ফুয়াদ হোসেন সরকার, ডেভলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের জ্যেষ্ঠ প্রভাষক ও ড্যাফোডিলআইমুন-২০২০-এর আহ্বায়ক মো. রাফি আল মাহমুদ, ড্যাফোডিলআইমুন-২০২০-এর ডেপুটি সেক্রেটারি অনিক প্রামানিক প্রমুখ।

‘যুব অংশগ্রহণ-২০৩০ এর মাধ্যমে সুশাসন ও টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিতকরণ’ শ্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে শুরু হওয়া এ সম্মেলনে দেশ-বিদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৩৫০জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছেন। সম্মেলনের সহযোগী অংশীদার হিসেবে রয়েছে ইউনাইটেড নেশনস বাংলাদেশ এবং নলেজ পার্টনার হিসেবে রয়েছে ইউনাইটেড নেশনস সেন্টার, ঢাকা। অর্গানাইজিং পার্টনার ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল ও ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল কলেজ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাহমুদ হাসান বলেন, তরুণরাই দেশের ভবিষ্যৎ। তাদের হাত ধরেই বাংলাদেশ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের যা কিছু উন্নয়ন হচ্ছে তা তরুণদের হাত ধরেই হচ্ছে। এসময় তিনি টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা ব্যাখ্যা করে বলেন, তিনটি জিনিসের সমন্বয় ঘটলে টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত হয়। সেগুলো হচ্ছে: জ্ঞান, কল্যাণকামিতা ও উন্নয়ন।

আয়োজক সংগঠন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি মডেল ইউনাইটেড নেশনস অ্যাসোসিয়েশনকে (ডিআইইউমুনা) ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি আরো বলেন, এ ধরনের আয়োজন নিয়মিত হওয়া উচিত। এর মাধ্যমে তরুণ নেতৃত্ব বিকশিত হয়।
সম্মানিত অতিথির বক্তব্যে ড. এস এম মাহবুব উল হক মজুমদার বলেন, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি সব সময় তরুণ নেতৃত্ব তৈরিতে কাজ করে। ড্যাফোডিলআইমুন কনফারেন্সের মাধ্যমে অনেক তরুণ নেতৃত্বে উঠে আসবে, তাতে সন্দেহ নেই। এ সময় তিনি তরুণ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, পৃথিবীকে নিরাপদ রাখার দায়িত্ব তোমাদের কাঁধে। তোমরা তোমাদের নেতৃত্বের মাধ্যমে একটি সমস্যামুক্ত পৃথিবী উপহার দেবে বলে আমরা বিশ্বাস করি।

চার দিনের এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে জাতিসংঘের ছায়া অধিবেশনের আদলে। এখানে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন, যেভাবে জাতিসংঘের সত্যিকার অধিবেশনে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধানরা নিজ নিজ দেশের প্রতিনিধত্ব করেন। এবারের এই অধিবেশন হচ্ছে দেশের সবচেয়ে বড় আবাসিক মডেল ইউএন কনফারেন্স।

সারাদিন/২ জানুয়ারি/আরটিএস