১১৯ বছরে ইতিহাসে শীতলে দিল্লি

আন্তর্জাতিক ডেস্কআন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:২২ অপরাহ্ণ, ৩১/১২/২০১৯

আগামী ৪৮ ঘণ্টার আগে দিল্লিতে শৈত্যপ্রবাহ কমবে না বলে জানিয়েছিল কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর। সেই মতো আজও প্রবল ঠান্ডায় কাঁপল রাজধানী। দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৯.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বনিম্ন ২.৬ ডিগ্রি। ১১৯ বছরের ইতিহাসে সোমবার ছিল দিল্লির শীতলতল দিন।

ঘন কুয়াশার কারণে দৃশ্যমানতা একেবারে কমে যাওয়ায় আজ ৫৩০টি বিমান ছাড়ার সময় পিছিয়ে যায়। দিল্লি ঢোকার আগে ১৬টি বিমান অন্য দিকে ঘুরিয়ে দেওয়া হয় এব‌ং বাতিল হয়ে যায় চারটি বিমান। ৩০টি ট্রেনও দেরি করে ছাড়ে। ঠান্ডার কারণে ৩১শে ডিসেম্বর ও পয়লা জানুয়ারি নয়ডা এবং গ্রেটার নয়ডার সব সরকারি ও বেসরকারি স্কুলে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত ছুটি দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩১ ডিসেম্বর) গ্রেটার নয়টায় কুয়াশার জেরে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে প্রাণ হারান দুই শিশু-সহ ছ’জন। পুলিশ জানিয়েছে, রোববার (২৯ ডিসেম্বর) রাত সাড়ে এগারোটা নাগাদ একটি গাড়ি পিছলে খালে পড়ে যায়। পুলিশ সূত্রের খবর, গাড়িটিতে মোট ১১ জন ছিলেন। ১১ জনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে ৬ জনকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। পুলিশ এ-ও জানিয়েছে, গাড়ির আরোহীরা প্রত্যেকে সম্ভল জেলার বাসিন্দা।

মঙ্গলবার পঞ্জাবের ফরিদকোটও ছিল শীতলতম। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ০.৭ ডিগ্রি, স্বাভাবিকের তুলনায় ৬ গুণ কম। সর্বনিম্ন ১.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় রোহতক ছিল হরিয়ানার শীতলতম অঞ্চল। মরসুমের শীতলতম রাত কাটিয়েছে শ্রীনগরও। ঘন কুয়াশার কারণে শ্রীনগর বিমানবন্দর থেকে সকালের সব উড়ান বাতিল হয়ে যায়।

সারাদিন/৩১ডিসেম্বর/টিআর