ভিটামিন সি-বেশি খেলে কিডনিতে পাথর হয়!

লাইফস্টাইল ডেস্কলাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ২:২৫ অপরাহ্ণ, ২৯/১২/২০১৯

রক্তে মেশে না বলেই অতিরিক্ত ভিটামিন সি স্টোন হয়ে অনেক সময়েই জমা হয় কিডনিতে। এতে কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল পরিমাণে থেকে যায় বলে জানা গেছে।

চিকিৎসকদের মতে, ডায়েরিয়া, বমিভাব, অম্বল থেকে গলা-বুক জ্বলা, মাথাব্যথা, অনিদ্রাতেও ভুগতে পারেন বেশি ভিটামিন সি খেলে।

১. হজমের সমস্যা
বেশি ভিটামিন সি সাপ্লিমেন্ট খেলে হজমের সমস্যা হতে পারে। দিনে ২ হাজার মিলিগ্রামের বেশি ভিটামিন সি খেলে তাই ডায়রিয়া, বমি, অম্বল হতে পারে।

২. আয়রনের মাত্রা বাড়ে
ভিটামিন সি আয়রনের খুব ভালো শোষক। তাই বেশি ভিটামিন সি খাওয়া মানেই শরীরে আয়রনের আধিক্য। এতে লিভার, হৃদয়, প্যানক্রিয়াস, থাইরয়েড ক্ষতিগ্রস্ত হয়। চাপ পড়ে স্নায়ুতন্ত্রেও।

৩. ভিটামিন সি কিন্তু জমে না
ভিটামিন সি রক্তে মেশে না। ফলে, শরীরের কোষে জমে না। তাই বাড়তি ভিটামিন ইউপিনের আকারে বেরিয়ে যায় শরীর থেকে। অতিরিক্ত খেলে হজমের সমস্যায় ভোগার সম্ভাবনা থাকে।

৪. কিডনিতে স্টোন
রক্তে মেশে না বলেই অতিরিক্ত ভিটামিন সি স্টোন হয়ে অনেক সময়েই জমা হয় কিডনিতে। এতে কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল পরিমাণে থেকে যায়। তাই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভিটামিন সি খান। অবশ্যই মাপ মেনে।

কীভাবে ভিটামিন সি খাবেন?

ফল, খাবারের মাধ্যমে ভিটামিন সি খেলে তা ক্ষতি করে না শরীরের। ওষুধ বা সাপ্লিমেন্ট হিসেবে খেলে ক্ষতিকর তা। তাই বেছে নিন এই ফল, সবজি—লেবু, কমলালেবু ,স্ট্রবেরি, কিউই ব্রক্কোলি, ব্রাশেল, স্প্রাউটস, ফুলকপি ,সবুজ, লাল বেল, পেপারস পালং শাক, সবুজ পাতাওয়ালা সবজি বাঁধাকপি শালগম টম্যাটো পেয়ারা আঙুল

সতর্কীকরণ: এই নিবন্ধ অনুসরণের আগে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া জরুরি।

সারাদিন/২৯ ডিসেম্বর/টিআরএস