নির্বাচন নিয়ে মন্তব্যের আগে ইসি মাহবুবের পদত্যাগ করা উচিত ছিল: তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধিনিজস্ব প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ৪:৪৮ অপরাহ্ণ, ২৬/১২/২০১৯

আমি মনে করি তার (ইসি মাহবুব) এ কথাগুলো বলার আগে পদত্যাগ করেই বলা প্রয়োজন। তিনি তার যেসব ব্যর্থতার কথা বলেছেন এসব কথা পদে থেকে বললে তা আত্মপ্রবঞ্চনা হয়। এগুলো পদত্যাগ করে বললেই বরং সমীচীন হয় বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

বৃহস্পতিবার (২৬ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের সাথে বৈঠক কালে তিনি এই মন্তব্য করেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, আমি মনে করি তার (ইসি মাহবুব) এ কথাগুলো বলার আগে পদত্যাগ করেই বলা প্রয়োজন। তিনি তার যেসব ব্যর্থতার কথা বলেছেন এসব কথা পদে থেকে বললে তা আত্মপ্রবঞ্চনা হয়। এগুলো পদত্যাগ করে বললেই বরং সমীচীন হয়।”

এর আগে বুধবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট (ইটিআই) ভবনে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দায়িত্বপ্রাপ্ত রিটার্নিং ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণে ইসি মাহবুব তালুকদার বলেন, “নির্বাচন কমিশন আইনত স্বাধীন, কিন্তু বাস্তব ক্ষেত্রে সেই স্বাধীনতা নির্বাচন প্রক্রিয়ার কাছে বন্দী। এ জন্য নির্বাচন প্রক্রিয়ার সংস্কার প্রয়োজন। নির্বাচন যদি গণতন্ত্রের পূর্বশর্ত হয়, তাহলে গণতন্ত্রের পদযাত্রা অবারিত করতে নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও স্বচ্ছ হতে হবে।”

এর পরিপ্রেক্ষিতে ড. হাছান মাহমুদ আরও বলেন, “নির্বাচন কমিশন ও নির্বাচন প্রক্রিয়ার সংস্কার আমাদের দাবিতেই বেশি হয়েছে। বাংলাদেশে আজ যে ছবিযুক্ত ভোটার তালিকা তা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এবং শেখ হাসিনার দাবি ছিল। সেই দাবির পরিপ্রেক্ষিতেই ছবিযুক্ত ভোটার তালিকা এবং নির্বাচন প্রক্রিয়াতে অনেক সংস্কার হয়েছে।”

“নির্বাচন কমিশনের সংস্কার একটি চলমান প্রক্রিয়া। এটি যুগের পরিবর্তনে, সময়ের পরিবর্তনে যেকোনো সময় হতে পারে। এক সময় আমাদের দেশে হাত তুলে ভোট নেয়া হতো। পরে সেই ভোট ব্যালটের মাধ্যমে নেয়া হচ্ছে। এরপর এখন ইভিএম মেশিনে ভোট দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। সুতরাং নির্বাচন গ্রহণের প্রক্রিয়া নিয়ে মাহবুব তালুকদার যে কথা বলেছেন তা স্বপদে থেকে বললে আত্মপ্রবঞ্চনা হয়”, যোগ করেন তিনি।

সারাদিন/২৬ডিসেম্বর/টি