বিজয় দিবসে ঢাকায় আন্তর্জাতিক ম্যারাথন হবে: তাপস

নিজস্ব প্রতিবেদকনিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১:১৯ অপরাহ্ণ, ১৬/০৯/২০২০

মহান বিজয় দিবস (১৬ ডিসেম্বর) উপলেক্ষ্যে ঢাকায় আন্তর্জাতিক ম্যারাথন , সাইক্লিং প্রতিযোগিতা, নৌকা বাইচ ও ঘুড়ি উৎসব অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের দ্বিতীয় পরিষদের তৃতীয় সভায় তিনি এই তথ্য জানান। নগর ভবনের মেয়র হানিফ অডিটরিয়ামে এই বোর্ড সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় তিনি করপোরেশনের ক্রীড়া ও সংস্কৃতি বিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটি গঠন করেন।

ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস কমিটির সভাপতি হিসেবে করপোরেশনের সাধারণ আসনের ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের মো. মোকাদ্দেস হোসেন জাহিদের নাম প্রস্তাব করলে উপস্থিত সকলে করতালির মাধ্যমে তা একযোগে সম্মতি জানান।

এ সময় ডিএসসিসি মেয়র কমিটির সদস্য হিসেবে ২১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান, ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. মাহবুবুল আলম, ৩৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আহমেদ ইমতিয়াজ মন্নাফী, ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, ৫৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. মীর হোসেন মীরু এবং সংরক্ষিত আসনের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের (সাধারণ ওয়ার্ড নম্বর ১৬, ১৭ ও ২১) নারগীস মাহতাব, ৫ নম্বর ওয়ার্ডের (সাধারণ ওয়ার্ড নম্বর ১৩, ১৯ ও ২০) রোকসানা ইসলাম চামেলী, ২২ নম্বর ওয়ার্ডের (সাধারণ ওয়ার্ড নম্বর ৬৭, ৬৮ ও ৬৯) মাহাফুজা আক্তারের নাম প্রস্তাব করলে উপস্থিত সকলে একযোগে তা অনুমোদন করেন এবং নবগঠিত স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্যদেরকে করতালির মাধ্যমে স্বাগত জানান।

মেয়র তাপস নবগঠিত স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্যদেরকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, নতুন স্ট্যান্ডিং কমিটির ওপর অর্পিত দায়িত্ব আপনারা যথাযথভাবে পালন করতে সক্ষম হবেন বলে আমি আশাবাদী। বোস্টন ম্যারাথন বললে বিশ্ববাসী যেমন বোস্টন শহরকে কল্পনায় ফুটিয়ে তোলেন, তেমনি মুজিববর্ষে আপনারা ঢাকা আন্তর্জাতিক ম্যারাথন প্রতিযোগিতা, সাইক্লিং প্রতিযোগিতা, নৌকা বাইচ ও ঘুড়ি উৎসব সফল আয়োজনের মাধ্যমে ঢাকা শহর ও ঢাকাবাসীকে বিশ্ব পরিমণ্ডলে পৌঁছে দেবেন বলে আমি বিশ্বাস করি।

ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ তাপস মশক নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রমে কাউন্সিলরদের সম্পৃক্ততা ও তদারকির জন্য তাদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম একটি বিশাল কর্মযজ্ঞ। আমরা নতুন আঙ্গিকে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম শুরু করেছি। আপনারা অনুমোদনপ্রাপ্ত প্রাথমিক বর্জ্যসেবা সংগ্রহকারীদের (পিসিএসপি) যথাযথ তদারকি ও সহযোগিতার মাধ্যমে বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় আমূল পরিবর্তন আনতে আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সঙ্গে নিজেদের সম্পৃক্ত করুন। আমরা ঢাকাবাসীকে একটি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন শহর উপহার দেবো।’

অনুষ্ঠানে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম আমান উল্লাহ নুরী, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (ডা.) শরীফ আহমেদ, প্রধান প্রকৌশলী মো. রেজাউর রহমান, ডিএসসিসি আকরামুজ্জামান, জিএম ট্রান্সপোর্ট বিপুল চন্দ্র বিশ্বাস, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আরিফুল হকসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সারাদিন/১৬সেপ্টেম্বর/এএইচ