চল্লিশ বছর পর আবারও প্রধানমন্ত্রী পদ পেল কিউবা

নিউজ ডেস্কনিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:৪৯ পূর্বাহ্ণ, ২২/১২/২০১৯

দীর্ঘ ৪০ বছর পর প্রধানমন্ত্রী পদ পেল লাতিন আমেরিকার দেশ কিউবা। শনিবার (২১ ডিসেম্বর) দেশটির পর্যটক মন্ত্রী ম্যানুয়েল মারেরো ক্রুজকে দেশটির প্রেসিডেন্ট মিগুয়েল দিয়াজ কানেল প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত করেন। এর আগে দেশটির পার্লামেন্টে মারেরোর নিয়োগ অনুমোদিত হয়।

প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত হওয়ার পর দেশটির প্রেসিডেন্ট মারেরোর প্রশংসা করে বলেন, সে আমাদের পর্যটন শিল্পকে অনেক এগিয়ে নিয়েছে। আমি আশা করি ভবিষ্যতে সে আরও বিদেশি বিনিয়োগ আনতে পারবে। তার সততা, কাজের প্রতি ভালোবাসা ও কমিউনিস্ট পার্টির প্রতি আনুগত্য রয়েছে।

দেশটির রাষ্ট্রীয় পত্রিকা গ্রানমা জানিয়েছে, মারেরো একজন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব যিনি পর্যটন শিল্প থেকে উঠে এসেছেন। এছাড়া দ্বীপবেষ্টিত দেশটির বৈদেশিক মুদ্রার অন্যতম প্রধান উত্স পর্যটন শিল্প। যা মারেরোর হাতে এগিয়ে গেছে।

এর আগে ১৯৭৬ সালে কিউবার বিপ্লবী নেতা ফিদেল কাস্ত্রো প্রধানমন্ত্রীর পদটি বাতিল করে দেন। কমিউনিস্ট পার্টি দ্বারা পরিচালিত দ্বীপ বেষ্টিত দেশটিতে এ বছরের শুরুর দিকে প্রধানমন্ত্রীর পদটি পুনঃস্থাপন করা হয়।

নবনিযুক্ত প্রধানমন্ত্রী মারেরো (৫৬) প্রেসিডেন্ট যেসব কাজ করবেন না সেগুলোর দায়িত্ব গ্রহণ করবেন।

দেশটির রাষ্ট্রীয় পরিচালিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল আউটলেট চুবাডবেতে সাই জানিয়েছে, প্রশাসনিক কাজে প্রধানমন্ত্রী হবেন প্রেসিডেন্টের ডান হাত।

তবে সমালোচকরা বলছে, প্রধানমন্ত্রী পদে আসলেও তেমন কোন পরিবর্তন আসবে না কিউবাই। দেশটির সকল ক্ষমতা কিউবান কমিউনিস্ট পার্টি ও সামরিক বাহিনীর নিকটেই থাকবে।

প্রসঙ্গত, কিউবাই কমিউনিস্ট বিপ্লবের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন ফিদেল কাস্ত্রো। যা ১৯৫৯ সালে কিউবান সরকারকে পতন ঘটান। এরপর তিনি নিজেকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ঘোষণা করেন। ১৯৭৬ সাল পর্যন্ত তিনি প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। যখন এটি বিলুপ্ত হয়ে যায় এবং তিনি কমিউনিস্ট পার্টির প্রধান হিসেবে অভিষিক্ত হন।

এছাড়া তিনি রাজ্য কাউন্সিলের সভাপতি এবং মন্ত্রী পরিষদের সভাপতি হন। ২০০৬ সালে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তিনি তার পদ থেকে সরে আসেন ও তার ভাই রাউলের নিকটে ক্ষমতা হস্তান্তর করেন। ২০১৬ সালে তিনি ফিদেল কাস্ত্রো মারা যান।

সারাদিন/২২ডিসেম্বর/