বিচারপতির ছেলের আইনজীবী হওয়ার সনদের প্রজ্ঞাপন স্থগিত

নিজস্ব প্রতিনিধিনিজস্ব প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ২:২৪ অপরাহ্ণ, ১৮/১২/২০১৯

বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের আইনজীবী অন্তর্ভুক্তির পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়নি বিচারপতির ছেলে। তাকে সরাসরি হাইকোর্টের আইনজীবী হিসেবে দেয়া হয়েছে সনদ। তবে বুধবার (১৮ ডিসেম্বর) তাকে দেয়া সনদের প্রজ্ঞাপন স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট।

একই সঙ্গে ওই ব্যক্তি পাস না করার পরও সরাসরি হাইকোর্টের আইনজীবী হিসেবে গেজেট প্রকাশ কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করা হয়েছে।

আইনজীবী অন্তর্ভুক্তির পরীক্ষায় পাস না করা বিচারপতির ছেলে জুম্মান সিদ্দিকীকে সরাসরি হাইকোর্টের আইনজীবী হিসেবে গেজেট প্রকাশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে করা রিটের শুনানি নিয়ে বুধবার (১৮ ডিসেম্বর) বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রিটের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার অনিক আর হক, ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন ও অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। অপরপক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার এম আমীর-উল ইসলাম।

এর আগে চার-চারটি বেঞ্চের অপারগতা প্রকাশের পর ১৫ ডিসেম্বর আইনজীবী অন্তর্ভুক্তির পরীক্ষায় পাস না করা বিচারপতির ছেলে জুম্মান সিদ্দিকীকে সরাসরি হাইকোর্টের আইনজীবী হিসেবে গেজেট প্রকাশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে করা রিট শুনানিতে সম্মত হন হাইকোর্ট।

ওই দিন আদালত বলেন, মামলাটি শুনানির জন্য মঙ্গলবার (১৭ ডিসেম্বর) কার্যতালিকায় থাকবে। এর আগে ২১ ও ২৮ নভেম্বর এবং ১১ ও ১৫ ডিসেম্বর হাইকোর্টের মোট চারটি বেঞ্চ ওই রিট শুনানিতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

২১ নভেম্বর আইনজীবী অন্তর্ভুক্তির পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ হওয়ার পরও হাইকোর্টের এক বিচারপতির ছেলেকে সরাসরি হাইকোর্টের আইনজীবী ঘোষণার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট করা হয়। আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন ও ইশরাত হাসান বাদী হয়ে এ রিট করেন।

রিটে বলা হয়, বাংলাদেশ বার কাউন্সিল পরীক্ষায় কয়েকবার অংশ নিয়েও কৃতকার্য হতে পারেননি হাইকোর্টের বিচারপতির ছেলে জুম্মান সিদ্দিকী। অথচ ১৯ সেপ্টেম্বর জুম্মান সিদ্দিকীকে সরাসরি হাইকোর্টের আইনজীবী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করে ৩১ অক্টোবর গেজেট প্রকাশ করা হয়েছে।

জুম্মান সিদ্দিকীসহ বার কাউন্সিলের সংশ্লিষ্টদের রিটে বিবাদী করা হয়।

সারাদিন/১৮ডিসেম্বর/টিআর