বিক্ষোভকারীদের দেখামাত্র গুলির নির্দেশ ভারতীয় রেল প্রতিমন্ত্রীর

নিউজ ডেস্কনিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ২:২১ অপরাহ্ণ, ১৮/১২/২০১৯

বিতর্কিত নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে গোটা ভারতে ব্যাপক বিক্ষোভ হচ্ছে। বিক্ষোভ দমনে মারমুখী দাঙ্গা পুলিশ। পুলিশের বাধায় বিভিন্ন এলাকায় এ বিক্ষোভ সহিংসতায় রূপ নিয়েছে।

আর এরই মধ্যে বিক্ষোভকারীদের দেখামাত্র পিস্তল দিয়ে গুলির নির্দেশ দিয়েছেন রেল প্রতিমন্ত্রী সুরেশ অঙ্গদি। অব্যাহত বিক্ষোভের মধ্যেই ভারতীয় বার্তা সংস্থা এএনআই-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এমন নির্দেশ দেন তিনি।

এদিকে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুর্শিদাবাদে একাধিক ট্রেনে আগুন দিয়েছে বিক্ষোভকারীরা। প্রসঙ্গটি টেনে রেল প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমি জেলা প্রশাসন ও রেলওয়ে কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছি, কেউ রেলের সম্পত্তি নষ্ট করতে এলেই গুলি চালান। একজন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হিসেবেই আমি এই নির্দেশ দিয়েছি।

তিনি বলেন, ‘এমনিতেই পশ্চিমবঙ্গ ও উত্তর-পূর্বে রেল লোকসানে চলছে। সেখানে ১৩ লাখ কর্মচারী মানুষকে ভালো পরিষেবা দিতে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন। কিন্তু বিরোধীরা সমাজবিরোধীদের দিয়ে এই কাজগুলো করিয়ে সেগুলি সমর্থনও করছেন।’

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর গুলি করার এই নির্দেশের পর সমালোচনার ঝড় উঠেছে। অনেকেরই প্রশ্ন, একজন রেল প্রতিমন্ত্রী কি এমন নির্দেশ দিতে পারেন?

সম্প্রতি নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন পাস করে হিন্দুত্ববাদী বিজেপি সরকার। এতে বলা হয়েছে- মুসলিম ছাড়া আফগানিস্তান, পাকিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে ধর্মীয় অত্যাচারের কারণে ভারতে শরণার্থী হিসেবে হিন্দু, পার্সি, শিখ, জৈন, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান ধর্মাবলম্বীরা আশ্রয় নিতে বাধ্য হলে তাদের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে।

বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন বাতিলের দাবিতে ব্যাপক বিক্ষোভে উত্তপ্ত হয়ে উঠে ভারত। বিশেষ করে দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলো অগ্নিগর্ভ হয়ে উঠে। পরে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে রাজধানী নয়াদিল্লিসহ গোটা ভারতে।

সারাদিন/১৮ডিসেম্বর/টিআর