যাত্রীদের সাথে প্রতারণায় স্টেশন মাষ্টারসহ চারজন সাময়িক বরখাস্ত

নিজস্ব প্রতিবেদকনিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ৬:৩৭ অপরাহ্ণ, ১৫/১২/২০১৯

রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজনের নির্দেশে বিভিন্ন স্টেশনের টিকেট বিক্রিতে অনিয়মের জন্য পাঠানো কর্মকর্তার গোপনে করা তদন্ত প্রতিবেদন করে বাংলাদেশ রেলওয়ে। এর পরিপ্রেক্ষিতে দিনাজুপুর স্টেশনে যাত্রীদের সাথে প্রতারণা ও অনিয়মের দায়ে স্টেশন মাষ্টারসহ চারজনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

তদন্ত প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, ৩, ৪ ও ৫ ডিসেম্বরে দিনাজপুর স্টেশনে দ্রুতযান এক্সপ্রেস, পঞ্চগড় এক্সপ্রেস এবং একতা এক্সপ্রেস ট্রেনের কোন আসন খালি নেই এমন বিজ্ঞপ্তি লাগানো ছিল। রেলওয়ের ওই কর্মকর্তার মাধ্যমে এবং টিকেট বিক্রি কার্যক্রমের খোজ নিয়ে জানা গেছে, ৩ থেকে ৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত দিনাজপুর স্টেশনে এই তিনটি ট্রেনের দুইহাজার ৯০৮ টিকেট বরাদ্দের বিপরীতে এক হাজার ৮২১ টি টিকেট বিক্রি হয়েছে। এছাড়া এক হাজার ১০৫টি টিকেট অবিক্রিত রেখে দিয়েছে। অথচ আসন খালি না থাকার বিজ্ঞপ্তি কাউন্টারে লাগানো ছিল।

তদন্ত তথ্য থেকে জানানো হয়, এই তথ্য প্রমাণে দিনাজপুর স্টেশনের অনুকূলে খালি থাকা শর্তেও আসন খালি নেই। এই বিজ্ঞপ্তিটি যাত্রী সাধারণের সাথে প্রতারণা এবং বাংলাদেশ রেলওয়ের বিরুদ্ধে একটি বড় ষড়যন্ত্র মূলক বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ রেলওয়ে সূত্রে জানা গেছে, রেলমন্ত্রী নির্দেশে এই ষড়যন্ত্রের সাথে জড়িত থাকার অপরাধে দিনাজপুর স্টেশনের স্টেশন মাষ্টার শংকর কুমার গাঙ্গুলী, ভারপ্রাপ্ত বুকিং সহকারী আব্দুল আল মামুন, রেজওয়ান সিদ্দিক এ ষড়যন্ত্রেও সাথে সরাসরি যুক্ত। এছাড়া আব্দুল কুদ্দুসের কাউন্টারে অতিরিক্ত টাকা পাওয়া যাওয়ায় অসৎ উপায় অবলম্বনের দায়ে তাকে সহ চারজনকে রোববার সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

সারাদিন/১৫ ডিসেম্বর/টি