মহান বিজয় দিবস উদযাপনে প্রস্তুত জাতীয় স্মৃৃতিসৌধ

সাভার সংবাদদাতাসাভার সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ১১:৪৯ পূর্বাহ্ণ, ১৪/১২/২০১৯

সোমবার ( ১৬ ডিসেম্বর) মহান বিজয় দিবস। দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে এর মধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। মানুষের শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হতে সম্পূর্ণরূপে প্রস্তুত রয়েছে লাল সবুজের গালিচার মধ্যে দাঁড়িয়ে থাকা সাত স্তম্ভের স্মৃতিসৌধ। এখন ৪৮তম বিজয় দিবস উদযাপনের জন্য মাত্র কয়েক ঘন্টা অপেক্ষা। জাতির গৌরব আর অহংকারের এ দিনটিতে জাতীয় স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গনে নামবে লাখো মানুষের ঢল। তাদের শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় ফুলে ফুলে ভরে উঠবে স্মৃতিসৌধের শহীদ বেদী।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, দিবসটি পালনে সবুজে ঘেরা ১০৮ হেক্টর জমির ওপর নির্মিত স্মৃতিসৌধ এলাকাটি গণপূর্তের কয়েক’শ কর্মীর নিরলস পরিশ্রমে পেয়েছে এক নতুন রূপ। রং তুলি নতুন সাজে আর আধুনিক যন্ত্রপাতির সাহায্যে ধুয়ে মুছে চকচকে করা হয়েছে স্মৃতিসৌধ চত্বরের প্রতিটি স্থাপনা। স্মৃতিসৌধ চত্বরের চারপাশের টবে শোভা পাচ্ছে নানা ধরনের রঙ্গিন ফুল আর পাতা বাহারের গাছ। নিরাপত্তার জন্য ওয়াচ টাওয়ার নির্মাণ, উচ্চ মাত্রার সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে। পুলিশ কন্টোল রুমের মাধ্যমে সার্বক্ষণিক নজরদারীসহ সৌধ এলাকায় থাকবে তিন স্তরের নিরাপত্তা বলয়। এখন শুধু শহীদদের শ্রদ্ধাঞ্জলি জানানোর অপেক্ষা।

১৬ ডিসেম্বরের প্রথম প্রহরে জাতীয় স্মৃতিসৌধ বেদীতে বীর সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে প্রষ্পস্তবক অর্পণ করবেন রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। থাকবে তিন বাহিনীর কুচকাওয়াজ ও গাড়ি বহরের মহড়া। রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিদায়ের পর সর্বসাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হবে সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধ। এতে লাখ মানুষের সমাগম ঘটবে স্মৃতিসৌধ চত্বর এলাকায়। তাই আগত দর্শনার্থীদের যাতায়াত নির্বিঘ্নে করতে সাভারে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক এবং স্মৃতিসৌধ চত্বরের চারপাশের এলাকায় সাদা পোশাকে গোয়েন্দা নজরদারিসহ মোতায়েন থাকবে সহস্রাধিক পুলিশ সদস্য।

জাতীয় স্মৃতিসৌধের গণপূর্ত বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ মিজানুর রহমান জানান, মহান বিজয় দিবসে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী পরিষদের সদস্যবৃন্দসহ লাখো মানুষ জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। এজন্য জাতীয় স্মৃতিসৌধকে দীর্ঘদিন ধরে ধুয়ে-মুছে, রং-তুলির আঁচড় ও রঙ-বেরঙের ফুল দিয়ে সাজানো হয়েছে। সেই সাথে স্মৃতিসৌধে আগত দর্শনার্থীসহ সকলের নিরাপত্তা ও কোন প্রকার অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে এখানকার পুলিশ ও আনসার ক্যাম্পকে সর্বোচ্চ সকর্কতামূলক অবস্থানে রাখা হয়েছে।

সারাদিন/১৪ ডিসেম্বর/আর