কিটে ত্রুটি,পরীক্ষা স্থগিতে বিএসএমএমইউকে চিঠি দিল গণস্বাস্থ্য

নিজস্ব প্রতিবেদকনিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ৫:৪৪ অপরাহ্ণ, ০৩/০৬/২০২০

কিটের কার্যকারিতায় ত্রুটি পাওয়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়কে (বিএসএমএমইউ) আপাতত পরীক্ষা স্থগিত রাখতে চিঠি দিয়েছে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র।

গণস্বাস্থ্য কর্তৃক উদ্ভাবিত কিটের দুটি অংশ-অ্যান্টিবডি ও অ্যান্টিজেন্টের মধ্যে অ্যান্টিজেন্টের ফলাফল আশানুরূপ আসছে না বিধায় মঙ্গলবার (২ জুন)
বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষে ওই অংশ পরীক্ষা স্থগিত রাখার জন্য চিঠি চিঠি দেয়া হয়।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. ফরহাদ বলেন, ‘গণস্বাস্থ্য কিটের যে কার্যকারিতা পরীক্ষা হচ্ছে, তার একটা অংশের পরীক্ষা স্থগিত রাখার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। অ্যান্টিবডি ও অ্যান্টিজেন্ট-এই দুটোর মধ্যে অ্যান্টিজেন্টের ফলাফল একটু কম আসছে। এজন্য একটা অংশের কাজ স্থগতি রাখতে বলা হয়েছে। নতুন করে তা ডেভেলপের পর সেগুলো আবার দেয়া হবে।’

এ-সংক্রান্ত একটি নোট তুলে ধরে ফরহাদ বলেন, ‘সম্প্রতি জিআর কোভিড-১৯ র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন্ট টেস্টে নমুনা লালা যথাযথ প্রক্রিয়ায় সংগ্রহে অসামঞ্জস্যতা থাকায় সঠিক ফলাফল নির্ণয়ে জটিলতা তৈরি হচ্ছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অ্যান্টিজেন্ট শনাক্তকরণের জন্য যথাযথ লালা নমুনায় থাকছে না বা অন্য বস্তুর মিশ্রণ লক্ষণীয়। সম্মিলিত মনিটরিং টিম এ সমস্যাটি চিহ্নিত করেছে। অতএব এই অ্যান্টিজেন্টের সমস্যা থেকে উত্তরণের জন্য ল্যাবে লালা সংগ্রহের পদ্ধতিগত কাজ শুরু হয়েছে, যা শিগগিরই আপনাদের জানাতে পারব বলে আমরা আশা করছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘এজন্য বলা হয়েছে, অ্যান্টিজেন্টের কাজ আপাতত বন্ধ রাখেন আর অ্যান্টিবডির যেটার ভালো ফলাফল এসেছে, সেটার অনুমোদন দেয়ার ব্যবস্থা করেন। আবার ডেভেলপ করার পর (অ্যান্টিজেন্ট) তাদের দেয়া হবে। তখন তাদের ধারণা দেয়া হবে, কীভাবে লালা সংগ্রহ করতে হবে অথবা কীভাবে কাজ করলে এর ভালো ফলাফল আসবে।’

এর আগে ১৩ মে গণবিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও গণস্বাস্থ্য ফার্মাসিউটিক্যালের প্রধান বিজ্ঞানী ড. বিজন কুমার শীল এবং গণস্বাস্থ্য সমাজভিত্তিক মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মহিবুল্লাহ খন্দকার বিএসএমএমইউতে গিয়ে কিট জমা দেন। প্রথম দফায় ২০০ কিট পরীক্ষার জন্য দেওয়া হয়েছিল।

সারাদিন/৩জুন/এএইচ