লকডাউন পরবর্তী কর্মক্ষেত্রে টিকে থাকতে বদলে ফেলুন নিজেকে

সারাদিন ডেস্কসারাদিন ডেস্ক
প্রকাশিত: ৮:৪১ অপরাহ্ণ, ৩১/০৫/২০২০

করোনাভাইরাসের প্রভাবে বিশ্বব‍্যাপী কয়েক মিলিয়ন মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়বে বলে আশঙ্কা করছে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংগঠন। যাদের চাকরি থাকবে তাদের কমতে পারে বেতন। ইতিমধ্যেই জোম্যাটো, উবেরের মতো সংস্থার অনেকেই চাকরি খুইয়েছেন।

এমন পরিস্থিতিতে কর্মী হিসেবে নিজেকে বদলাতে হবে। পদ অনুযায়ী কাজেও হেরফের হতে পারে সেক্ষেত্রে মানিয়ে নেয়ার যোগ‍্যতা থাকতে হবে। চলুন জেনে নেই কিছু টিপস-

পরিবর্তনের সঙ্গে তাল মেলাতে শিখুন

লকডাউনের ফলে কাজের ধারায় পরিবর্তন ইতিমধ্যেই চলে এসেছে। অফিসের পরিবর্তে বাড়িতে বসেই এখন কাজ করছেন অনেকে। কর্পোরেট সেক্টরের মতো ওয়ার্ক ফ্রম হোমে অভ্যস্ত অধিকাংশ কর্মজীবী। কঠিন পরিস্থিতিতে কর্মক্ষেত্রে আরও নানা রকমের পরিবর্তন আসতে পারে। সেক্ষেত্রে বিরক্ত হলে চলবে না। নিজেকে টিকিয়ে রাখার জন্য সবার প্রথম আপনাকে পরিবর্তনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেওয়ার অভ্যাস তৈরি করতে হবে।

নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষমতা বাড়ান

একটি জাহাজ মাঝসমুদ্রে ডুবতে থাকলে তাকে রক্ষা করতে পারেন একমাত্র নাবিক। সেক্ষেত্রে তার নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষমতার মাধ্যমে তিনি সকলকে বিপদ থেকে বাঁচান। লকডাউনের জেরে আপনার সংস্থারও ডুবন্ত জাহাজের মতো অবস্থা হতে পারে। তাই নিজের নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষমতাকে বাড়িয়ে তোলার চেষ্টা করুন। কে বলতে পারে বিপদের দিনে আপনার এই দক্ষতাই হয়তো আপনার সংস্থাকে রক্ষা করল। আর সংস্থা বিপদ থেকে বাঁচা মানেই আপনার চাকরিও সুরক্ষিত থাকা।

সহকর্মীর মানসিক অবস্থা বুঝতে শিখুন

কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি আমরা। এই সময়ে চাকরি নিয়ে অনিশ্চয়তা রয়েছে প্রায় সকলের। অনেকেই বিষয়টিকে পরিস্থিতির শিকার ভেবে মেনে নিচ্ছেন। অনেকে আবার তা মানতে পারছেন না। ফলে বাড়ছে মানসিক চাপ। অস্থির অবস্থায় কোনও কর্মীই তার সবটা উজাড় করে কাজ করতে পারেন না। সেক্ষেত্রে কিছু না কিছু ভুল হতে বাধ্য। এই পরিস্থিতিতে একজন দক্ষ টিম লিডারের প্রত্যেক কর্মীর মানসিক অবস্থা বোঝার ক্ষমতা থাকা অত্যন্ত প্রয়োজন। নাহলে কাজে ভুলের পরিমাণ বাড়বে। তাই এখন থেকে আপনার আশেপাশে থাকা সকলের সঙ্গে কথাবার্তা বলে তাদের মানসিক অবস্থা বোঝার চেষ্টা করুন।

প্রযুক্তি সম্পর্কে ওয়াকিবহাল হোন: বর্তমানে মানুষ যেকোনও কাজের ক্ষেত্রে অনেক বেশি প্রযুক্তির উপর নির্ভরশীল। কলম হাতে লিখে কাজ তো কবেই প্রায় অতীত হয়ে গিয়েছে। সর্বত্রই কম্পিউটারের রমরমা। যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে হলে আপনাকেও প্রযুক্তিগত উন্নতির বিষয়ে অনেক বেশি সচেতন হতে হবে। নইলে কিন্তু প্রযুক্তি সম্পর্কে ওয়াকিবহাল যেকোনও ব্যক্তি আপনাকে টক্কর দিতে পারে।

সারাদিন/৩১মে/এএইচ