‌‘পুলিশ-ডাক্তারদের জন্য হলেও ঘরে থাকুন’

সারাদিন ডেস্কসারাদিন ডেস্ক
প্রকাশিত: ৬:২৮ অপরাহ্ণ, ১৩/০৪/২০২০

ক্রিকেটের প্রাক্তন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা নিজের ফেসবুক পেজে একটি স্ট্যাটাসে বলেছেন, মহামারী করোনাভাইরাসের প্রভাব মোকাবেলায় সাধারণ ছুটি বা লকডাউন ঘোষণা করেছে সরকার। তারপরেও কিছু মানুষকে ঘরে রাখা যাচ্ছে না। অলিতে-গলিতে আড্ডা বসাচ্ছেন তারা। অবশ্য পুলিশ এলেই তাদের সঙ্গে ‘টম অ্যান্ড জেরি’র মতো লুকোচুরি খেলছেন কিছু মানুষ। তবে এই মানুষকে ঘরে রাখতে দিন-রাত পরিশ্রম করছেন পুলিশ সদস্যরা। অন্যদিকে আক্রান্ত লোকদের সেবায় তৎপর ভূমিকা পালন করছেন ডাক্তাররাও।

রোববার (১২ এপ্রিল) রাতে নিজের ফেসবুক পেজে অসচেতন মানুষদের বোঝাতে ভিন্ন পন্থায় স্ট্যাটাস দিয়েছেন মাশরাফি। একজন পরিশ্রান্ত পুলিশের ছবি দিয়ে নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য লিখেছেন, ‘করোনাভাইরাস দেশে আঘাত হানার সাথে সাথে তাদের কাজ যেন বেড়ে গেছে অনেকগুণ। দিন-রাত এক করে কাজ করে যাচ্ছেন তারা, কোনো প্রকার অভিযোগ ছাড়াই। হ্যাঁ, আমাদের পুলিশ ভাইদের কথা বলছি। তারা সত্যিই অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন, শুধু আমাদেরকে করোনা নামক মহামারী থেকে সুরক্ষিত রাখতে।’

করোনাভাইরাসের কারণে মাশরাফি নিজেও এখন ঘরবন্দি। যদিও ঘর থেকেই মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। ক্রিকেটারদের তহবিল গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। আবার সংসদ সদস্য হিসেব নিজের ফাউন্ডেশন থেকেও দুস্থদের খাদ্য সহায়তা দিচ্ছেন। এমন কি নড়াইলে চিকিৎসককে রোগীর বাড়িতেও পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। যেন কেউ আর বিনা চিকিৎসায় কষ্ট না পান।

এর বাইরে নড়াইল সদর হাসপাতাল গেটে স্থাপন করেছেন ‘ডিসইনফেক্টর চেম্বার’। হাসপাতালে প্রবেশের মুখে এই চেম্বারের মধ্যে দিয়ে কেউ প্রবেশ করলে তার শরীরে জীবাণুনাশক স্প্রে ছিটানো হবে। সব মিলিয়ে করোনা পরিস্থিতিতে নিজের এলাকায় দারুণ সব উদ্যোগ নিয়েছেন মাশরাফি নিজে। এসব কাজের পাশাপাশি সামাজিক মাধ্যমগুলোতে সব সময় ভক্তদের বিভিন্নভাবে সচেতনও করছেন সাবেক এই অধিনায়ক।

যেমন করোনাকালে অমানুষিক পরিশ্রম করে যাচ্ছেন পুলিশ, চিকিৎসকরা। তাদের বাস্তব চিত্রটা সবার সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করলেন মাশরাফি। স্ট্যাটাস দিয়ে তিনি লিখেছেন, ‘সারাটা দিন আমাদের পেছনে ছুটতে ছুটতে শরীরটা যখন আর সায় দেয় না, তখন মশার কামড়-গরম সব কিছুর কাছে হয়তো হার মেনে যান। বসার কিছু একটা পেলে শরীরটা ১৫-৩০ মিনিটের জন্য ছেড়ে দেয়, কারণ তারপর যে আবার যেতে হবে টহলে। সবাইকে সতর্ক করতে গিয়ে তারা ভুলেই যান যে তাদেরও একটা বাসা আছে, পরিবার আছে। আমরা কি পারি না এই পুলিশ, ডাক্তারদের দিকে তাকিয়ে হলেও নিজেদের একটু নিয়ন্ত্রণে রাখতে? আমরা যদি শুধু আমাদের কথা চিন্তা করেও বাসায় থাকতাম, তাহলে হয়তো এই মানুষগুলোর এতটা কষ্ট হতো না।’

শেষ দিকে মাশরাফি সবাইকে ঘরে থাকার আহ্বান জানিয়ে লিখেছেন, ‘মহান আল্লাহ্ তাআলার কাছে দোয়া করি, যেন এই মানুষগুলো ভালো থাকেন। সবাই ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন, অন্যকে সুস্থ থাকতে সাহায্য করুন।’

Nagad

সারাদিন/১৩এপ্রিল/টিআর