‘নিজেরা সচেতন না হলে আমরা কঠোর আইন প্রয়োগ করব’

নিজস্ব প্রতিবেদকনিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ৫:১৫ অপরাহ্ণ, ১৩/০৪/২০২০

র‍্যাবের বিদায়ী মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেন, সরকারের পক্ষ থেকে বারবার শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার কথা বলা সত্ত্বেও অনেকেই তা লঙ্ঘন করছেন। এখন আপনি ঘরে থাকবেন নাকি কবরে যাবেন এই সিদ্ধান্তটা আপনার। আপনারা সবাই ঘরে থাকুন, বাইরে বের হবেন না। নিজেরা সচেতন না হলে আমরা কঠোর আইন প্রয়োগ করব।

সোমবার দুপুরে অনলাইনে র‌্যাব থেকে বিদায়ের আগে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন বেনজীর আহমেদ। আগামী বুধবার তিনি নতুন আইজিপি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের কথা রয়েছে। এর আগে ৮ এপ্রিল তাকে আইজিপি হিসেবে নিয়োগ দেয় সরকার। দীর্ঘ পাঁচবছরের বেশি সময় সুনামের সঙ্গে র‌্যাব প্রধানের দায়িত্ব পালন করেন বেনজীর।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘আমরা সবসময় বুঝিয়ে মানুষকে ঘরে রাখতে পারব না। যদি নিজেরা সচেতন না হয়। আইনশৃঙ্খলাবাহিনী এলাকায় এলাকায় গেলে মানুষ ঘরে চলে যায়। আমরা চলে এলে রাস্তা, চায়ের দোকানে মানুষ আড্ডা দিতে থাকে। এটা ঠিক না। করোনা বিপদ আমাদের সবার। সরকার ছুটি দিয়েছে, ত্রাণ দিচ্ছে মানুষকে ঘরে থাকার জন্য। তাই সবাই আরো সচেতন হবো।’

যদি সরকার চায় তাহলে আমরা সাধারণ মানুষকে আইন প্রয়োগ করে জেলে দিতে বাধ্য হবো বলেন নতুন পুলিশ প্রধান।

বাড়িতে বাড়িতে খাবার পৌঁছে দিই উল্লেখ করে র‌্যাবের বিদায়ী প্রধান বলেন, ‘করোনা একটা বৈশ্বষিক সমস্যা। যারা স্বাস্থ্যসেবায় উন্নত, সেসব দেশ হিমশিম খাচ্ছে। কারণ বিশ্বব্যাপী ভয়াবহ অবস্থা চলছে। কেউ পাবলিক গ্যাদারিং করবেন না। অনেকে ত্রাণ বিতরণ করছেন, তাদেরকে সম্মান জানানোর ভাষা আমার নেই। তবে, ত্রাণ বিতরণের সময় দয়া করে মানুষের উপস্থিতি কিংবা লোকসমাগম করবেন না। বাড়ি বাড়ি দিয়ে আসুন। তাহলে এই রোগের সংক্রমণ বাড়বে না। কারণ পাবলিক গ্যাদারিং করে ত্রাণ দিয়ে বিপদ ডেকে আনবেন না।’

ত্রাণ চুরির ব্যাপারে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নে জবাবে বেনজীর আহমেদ বলেন, মানুষকে ঘরে রাখতে সরকার নিন্ম আয়ের মানুষকে ত্রাণ দিচ্ছে। সেটা কাউকে চুরি করতে নয়। রিলিফ নিয়ে নয় ছয় করতে দিব না। আর এটা সহ্য করা হবে না। যারা রিলিফ আত্মসাৎ করছে তাদের বিষয়ে আমাদের জানাবেন। সঙ্গে সঙ্গে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Nagad

সারাদিন/১৩ এপ্রিল