পেঁয়াজে আগুন নিভবে কবে?

নিজস্ব প্রতিনিধিনিজস্ব প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ১২:৫৩ অপরাহ্ণ, ০৯/১২/২০১৯

ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ৪৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি করছে একটি সরকারি বিক্রয়কারী সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। টিসিবির পেঁয়াজ কিনতে দুই বা তিন ঘণ্টা লাইনে অপেক্ষা করতে হচ্ছে ক্রেতাদের।

এরমধ্যেই অনেকে ধৈর্য্য হারিয়ে রাগে ক্ষোভে পেঁয়াজ না নিয়েই বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন। দীর্ঘ লাইন আর ধাক্কাধাক্কি সামলাতে দেশের বিভিন্ন জেলায় টিসিবির পেঁয়াজ বিক্রয় কেন্দ্রে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এরপরেও মানুষের উপচে পড়া ভিড় কিছুতেই সামলানো যাচ্ছে না। সারা দেশে লাইন ধরে পেঁয়াজ কিনছেন মানুষ। অনেকেই আবার আড়ইশো টাকা কেজির পেঁয়াজ ৪৫ টাকা কেজিতে কিনতে পেরে দিন শেষে হাসি মুখেই ঘরে ফিরছেন।

তবু পেঁয়াজ নিয়ে এই লঙ্কাকাণ্ডে সাধারণ মানুষের অভিযোগের শেষ নেই। যেন সবার মুখে এক প্রশ্ন- পেয়াজে আগুন নিভবে কবে?

তারপরও পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতা কিছুতেই কাটছে না। বাজারে স্থিতিশীলতা ফেরাতে বহির্বিশ্ব থেকেই এরইমধ্যে পেঁয়াজ আমদানি শুরু করেছে সরকার। খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম তথৈবচ! এরইমধ্যে পাকিস্তান ও মিশর থেকে পেঁয়াজ আমদানি শুরু হয়েছে। সবশেষ রোববার মিয়ানমার থেকে টেকনাফ স্থলবন্দরে এসেছ ৪১ হাজার মণ পেঁয়াজ।

এবিষয়ে টেকনাফ স্থলবন্দরের শুল্ক কর্মকর্তা মো. আবছার উদ্দিন জানিয়েছেন, ১ হাজার ৬৩৮ মেট্রিক টন (৪১ হাজার মণ) পেঁয়াজ মিয়ানমার থেকে এসেছে। আরও পেঁয়াজ খালাসের অপেক্ষায় আছে।

এ ব্যাপারে টেকনাফ শুল্ক বিভাগ জানিয়েছে, চলতি মাসে মিয়ানমার থেকে এ বন্দর দিয়ে মোট ৭ হাজার ৮৩ মেট্রিক টন পেঁয়াজ এসেছে। নভেম্বরে এসেছে ২১ হাজার ৫৬০ মেট্রিক জন পেয়াজ। এর আগে অক্টোবরে ২০ হাজার ৮৪৩ মেট্রিক টন, সেপ্টেম্বরে ৩ হাজার ৫৭৩ দশমিক ১৪১ মেট্রিক টন ও আগস্টে মিয়ানমার থেকে এসেছে ৮৪ মেট্রিক জন পেঁয়াজ।

১৫ বছর পর গেল ২০ নভেম্বর পাকিস্তানের করাচি থেকে ৮১ টন পেঁয়াজ নিয়ে একটি কার্গো বিমান শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায়।

আর ১৪ নভেম্বর জাতীয় সংসদে দেয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানিয়েছিলেন, মিশর ও তুরস্ক থেকে ৫০ হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানি করবে সরকার।

এরইমধ্যে তুরস্ক থেকে আড়াই হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ এসেছে। এই বিপুল পরিমাণ পেঁয়াজ আমদানির পরও বাজারে দাম এতটুকুও কমছে না। এখনও ২৭০-২৮০ কেজি দরে পেঁয়াজ কিনতে হচ্ছে সাধারণ ক্রেতাদের। এ নিয়ে সারা দেশে ব্যাপক তোলপাড় ও সমালোচনার ঝড় উঠলেও বাজার নিয়ন্ত্রণে কার্যকর কোনও পদক্ষেপই দৃশ্যমান হচ্ছে না।

অভিযোগ আছে, অতিরিক্ত মুনাফার লোভে পেঁয়াজের বাজারে আগুন লাগিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। যদিও ব্যবসায়ীদের মতে, কয়েক গুণ বেশি দামে পেঁয়াজ কিনতে হচ্ছে বলেই বিক্রিও করতে হচ্ছে বেশি দামে।

সারাদিন/৯ডিসেম্বর/টিআর