বানারীপাড়ায় তিন হত্যায় ঘটনায় আটক ১

বানারীপাড়া সংবাদদাতাবানারীপাড়া সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ৮:৫৯ পূর্বাহ্ণ, ০৮/১২/২০১৯

বানারীপাড়ায় প্রবাসীর বৃদ্ধা মা ও ভগ্নিপতি সহ একই পরিবারের তিনজন হত্যাকান্ডের শিকার হয়েছেন। উপজেলার সলিয়াবাপুর ইউনিয়নের সলিয়াবাকপুর গ্রামের হাওলাদার বাড়িতে এ নৃশংস হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। ট্রিপল মার্ডারের লোমহর্ষক এ ঘটনায় ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার পূর্ব রায়পাশা গ্রামের চুন্নু হাওলাদারের ছেলে রাজমিস্ত্রি জাকির হোসেনকে (৪০)ঘটনাস্থল থেকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

জানা যায়, নিহত মরিয়ম ওই বাড়ির মৃত নজীর আলীর স্ত্রী। নিহত ইউসুফ সলিয়াবাকপুর ইউনিয়নের দাড়ালিয়া গ্রামের ফারুক হাওলাদারের ছেলে ও মরিয়মের বোনের ছেলে। তিনি একজন ভ্যান চালক। এছাড়া মরিয়মের মেজ মেয়ের জামাই হলেন নিহত আলম। তিনি স্বরূপকাঠি উপজেলার বাসিন্দা ও ঢাকা ডেমরা থানার অবসরপ্রাপ্ত এক স্কুল মাষ্টার। তিনি গতকাল শুক্রবার বেড়াতে আছেন। মরিয়মের ঘরে ঐ রাতে তার কুয়েত প্রবাসী ছেলে আঃ রবের স্ত্রী মিসরাত জাহান শিমু ও নাতি আছিয়া ছিলেন।নাতি আছিয়া চাখার কলেজের এইচ এস সি ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী।

আছিয়া জানায়, শনিবার ফজরের আজানের পর নামাজ পড়তে দাদী মরিয়মকে উঠাতে ঘরের ভেতরে যাই। সেখানে দাদিকে না পেয়ে পাশের বারান্দায় তাকে মৃত দেখতে পেয়ে চিৎকার ডাক চিৎকার দেই। পরে বাড়ির লোকজন মরিয়মকে বারান্দায় ও আলমকে সামনের খাটে মৃত দেখতে পায়। আলমের পাশে রক্ত মাখা একটি বালিশ দেখতে পাওয়া যায়। এর কিছুক্ষণ পরে পুকুরের ঘাটলার উপরে লোহার গুনা দিয়ে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় ইউসুফের মরদেহ দেখা যায়। এরপর বাড়ির লোকজন থানায় খবর দিলে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

গোটা এলাকা স্তম্ভিত হয়ে গেছে। এলাকায় শোকাবহ পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। গোটা উপজেলা জুড়ে বিরাজ করছে চরম আতঙ্ক ও উৎকন্ঠা।

এসময় স্থানীয় সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. শাহে আলম নিহতদের পরিবারের সদস্যদের সান্তনা দেন এবং প্রশাসনকে তিনজনের মৃত্যু রহস্য উদঘাটন ও এর সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারের নির্দেশ দেন। র‌্যাব,পিবিআই ও সিআইডির কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল থেকে এসময় বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করেন।

এ প্রসঙ্গে বরিশাল জেলা পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম বিপিএম(বার) জানান তিনটি লাশ উদ্ধারের খবর পেয়ে তিনি তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে ছুঁটে আসেন।তিনজনের মৃতদেহের নাক ও কান থেকে রক্তক্ষরণ হওয়ায় তাদের খাবারের সঙ্গে বিষাক্ত কিছু খাইয়ে,বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ কিংবা আঘাত করে হত্যা করা হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে

বানারীপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শিশির কুমার পাল জানান এ ব্যাপারে থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি ও মৃত্যু রহস্য উদঘাটনে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহগুলো শনিবার দুপুরে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

রিশালের অতিরিক্ত ডিআইজি এহেসান উল্লাহ্ জানান ট্রিপল এ হত্যাকান্ডে প্রাথমিকভাবে রাজমিস্ত্রি জাকির হোসেনের সংশ্লিষ্টতার প্রমান পাওয়া গেছে। পুরো রহস্য উদঘাটনে সমন্বিতভাবে চেষ্টা চলছে।

সারাদিন/৮ডিসেম্বর