বানারীপাড়ায় তিন খুন

ধারণা করা হচ্ছে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে: পুলিশ সুপার

বানারীপাড়া সংবাদদাতাবানারীপাড়া সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ১:৩১ অপরাহ্ণ, ০৭/১২/২০১৯

বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার সলিয়াবাকপুর গ্রামের আলম মেম্বারের বাড়ি থেকে ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার (৭ ডিসেম্বর) সকালে ওই বাড়ির মৃত নজীর আলীর ঘর থেকে মরিয়ম (৭৫) ও আলম (৫৫)এবং বাড়ির পুকুরের ঘাটলার উপর থেকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় ইউসুফ(২৫)’র মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

ঘটনার তদন্তে এসে পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ওই তিনজনকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনার সাথে কারা জড়িত তা খুঁজে বের করতে কাজ শুরু করেছে পুলিশ। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ উদ্ধার করে শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

জানা যায়, নিহত মরিয়ম ওই বাড়ির মৃত নজীর আলীর স্ত্রী। নিহত ইউসুফ সলিয়াবাকপুর ইউনিয়নের দাড়ালিয়া গ্রামের ফারুক হাওলাদারের ছেলে ও মরিয়মের বোনের ছেলে। তিনি একজন ভ্যান চালক। এছাড়া মরিয়মের মেজ মেয়ের জামাই হলেন নিহত আলম। তিনি স্বরূপকাঠি উপজেলার বাসিন্দা ও ঢাকা ডেমরা থানার অবসরপ্রাপ্ত এক স্কুল মাষ্টার। তিনি গতকাল শুক্রবার বেড়াতে আছেন। মরিয়মের ঘরে ঐ রাতে তার কুয়েত প্রবাসী ছেলে আঃ রবের স্ত্রী মিসরাত জাহান শিমু ও নাতি আছিয়া ছিলেন।নাতি আছিয়া চাখার কলেজের এইচ এস সি ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী।

বানারীপাড়ায় নিহত তিন জনে ছবি।

আছিয়া জানায়, শনিবার ফজরের আজানের পর নামাজ পড়তে দাদী মরিয়মকে উঠাতে ঘরের ভেতরে যাই। সেখানে দাদিকে না পেয়ে পাশের বারান্দায় তাকে মৃত দেখতে পেয়ে চিৎকার ডাক চিৎকার দেই। পরে বাড়ির লোকজন মরিয়মকে বারান্দায় ও আলমকে সামনের খাটে মৃত দেখতে পায়। আলমের পাশে রক্ত মাখা একটি বালিশ দেখতে পাওয়া যায়। এর কিছুক্ষণ পরে পুকুরের ঘাটলার উপরে লোহার গুনা দিয়ে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় ইউসুফের মরদেহ দেখা যায়। এরপর বাড়ির লোকজন থানায় খবর দিলে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

বানারীপাড়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শিশির কুমার পাল জানান, ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ শের-ই–বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে। ঘটনা স্থলে একটি ব্যানসন সিগারেটের অর্ধাংশ এবং বাড়ির ছাদে ও একই সিগারেটের অর্ধাংশ পাওয়া যায়।

সংবাদ পেয়ে তাৎক্ষনিক  বরিশাল ২ আসনের (বানারীপাড়া-উজিরপুরের)  সাংসদ শাহে আলম ঘটনাস্থলে ছুটে যান।

সারাদিন/৭ডিসেম্বর/আর