চট্টগ্রাম ৮ -উপ-নির্বাচন

চট্টগ্রাম ৮-উপ-নির্বাচন: নৌকা-ধানের শীষ কে পাচ্ছেন?

বিশেষ প্রতিনিধিবিশেষ প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ৩:২৯ অপরাহ্ণ, ০২/১২/২০১৯

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) একাংশের সাবেক সভাপতি মঈন উদ্দীন খান বাদলের আসনে উপনির্বাচন ১৩ জানুয়ারি। ইতিমধ্যে তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। রবিবার (১ ডিসেম্বর) নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো. আলমগীর এ তফসিল ঘোষণা করেন। তবে চট্টগ্রাম-৮ (বোয়ালখালী, চান্দগাঁও-পাঁচলাইশ আংশিক) সংসদীয় আসনের এ নির্বাচন নিয়ে বেশ আলোচনা চলছে। সবার মুখে একই আলোচনা কে হচ্ছেন বড় দুই জোটের প্রার্থী।

তবে এ উপ-নির্বাচনে অংশ নিবে কিনা তা এখনো ঘোষণা দেয়নি বিএনপি। দলটির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে। তবে দল নির্বাচনে অংশ নিলে মনোনয়ন চাইবেন দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সুফিয়ান ও বিএনপি নেতা এরশাদ উল্লাহ। এর মধ্যে আবু সুফিয়ান গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ সংসদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী হয়েছিলেন।

জানা যায়, এই আসনে আওয়ামী লীগসহ মহাজোটের প্রার্থী অনেকেই । তবে জোরালো বিবেচনায় ৪ থেকে ৫ জনের বেশি নয়। এর বাইরে আছেন বিএনপির দুই প্রার্থীও। আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকজন জ্যেষ্ঠ নেতার সঙ্গে মনোনয়নের লড়াইয়ে আছেন কয়েকজন তরুণ নেতাও।

বিশ্বস্ত সূত্র বলছে, এই আসনে আওয়ামী লীগসহ মহাজোট, বিএনপিসহ স্বতন্ত্র মিলে মাঠ রয়েছন হেভিওয়েট ১৫ জন প্রার্থী। এই ১৫ জন প্রার্থীর সরব পদচারণায় বোয়ালখালী-চান্দগাঁও নির্বাচনী মাঠ এখন বেশ সরগরম। তারা উপ-নির্বাচনের জন্য মাঠ পর্যায়ে দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ ভোটারদের জানান দিতে পোস্টার-ব্যানারে চান্দগাঁও-বোয়ালখালীসহ পুরো নির্বাচনী এলাকা ছেয়ে ফেলেছেন।

সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমেদ, প্রয়াত সাংসদ মঈন উদ্দিন খান বাদলের স্ত্রী সেলিনা খান বাদল, , নগর আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ও সিডিএর সাবেক চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম, নগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম চৌধুরী ও ব্যারিস্টার কফিল উদ্দিন।

মোসলেম উদ্দিন দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামী লীগ এর সংগঠক। জেলা আওয়ামী লীগের দীর্ঘদিন সাধারণ সম্পাদক ছিলেন ,এখন -সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। ৯০ সালে পটিয়া থেকে আওয়ামী লীগের প্রাথী ছিলেন একবার। এরপরে কখনো মনোনয়ন পাননি বিভিন্ন রাজনৈতিক হিসাব নিকাশে। কিন্তু এই আসনে বিশেষ করে বোয়ালখালীতে দীর্ঘদিন ধরে তৃণমূলের নেতা কর্মীদের যোগাযোগের কারণে আওয়ামী লীগের প্রাথী হিসেবে হাইকমান্ডের সুবিবেচনায় রয়েছেন। এছাড়া আওয়ামী রাজনীতির সাথে এই এলাকার জড়িত অনেকেই বলছেন , মোসলেম উদ্দিন এর রাজনীতির শেষ সময়ে দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনা তাকে এমপি মনোনয়ন প্রদান করবেন।

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ আব্দুছ সালাম অনেকদিন সিডিএ এর চেয়ারম্যান ছিলেন। চট্টগ্রাম মহানগর কেন্দ্রিক অনেক বড় বড় প্রজেক্ট করেছেন। তাই তিনিও আলোচনায় আছেন। এছাড়া প্রয়াত এমপি জনাব মাইনুদ্দিন খান বাদলের এমপি এর প্রতি সহানুভূতিশীল শীল হলেই কেবল বাদলের স্ত্রী সেলিনা খান বাদল মনোনয়ন পেতে পারেন।

এছাড়া বিএনপি থেকে দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আবু সুফিয়ান ও বিএনপি নেতা এরশাদুল্লাহর নাম শোনা যাচ্ছে নেতাকর্মীদের মুখে। সাবেক এমপি ও মন্ত্রী মোর্শেদ খান বিএনপি থেকে পদত্যাগ করায় এই দুইজনের কেউ মনোনয়ন পাবেন। বিএনপি নির্বাচনে এলে আবু সুফিয়ান দলের মনোনয়ন পাবেন বলে বিএনপির হাইকমান্ডের একটি সূত্র নিচ্ছিত করেছে।

উল্লেখ্য এ আসনে ভোটার সংখ্যা ৪ লাখ ৭৫ হাজার ৯৯৬ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৪১ হাজার ৯৯২ জন এবং মহিলা ভোটার ২ লাখ ৩৪ হাজার ৭৪ জন।উল্লেখ চান্দগাঁও পাঁচলাইশের চেয়ে বোয়ালখালী উপজেলায় ভোটার সংখ্যা বেশি। এই জন্য দুইদলের বিবেচনায় বোয়ালখালীর প্রার্থীরা সুবিধাজনক অবস্থায় আছেন।

সারাদিন/২ ডিসেম্বর/আর