আজ ঐতিহাসিক পার্বত্য শান্তি চুক্তি দিবস, বিশেষ কর্মসূচি গ্রহণ

সারাদিন ডেস্কসারাদিন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২:০১ পূর্বাহ্ণ, ০২/১২/২০১৯

বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রামের উপজাতি পাহাড়ীদের সঙ্গে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ বন্ধ এবং শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সম্পাদিত একটি  চুক্তি ‘পার্বত্য শান্তি চুক্তি’। ১৯৯৭ খ্রিষ্টাব্দের ২ ডিসেম্বর এই দিনে চুক্তিটি স্বাক্ষর করেছিল পার্বত্য চট্টগ্রামের আদিবাসীদের প্রতিনিধি জনসংহতি সমিতির সঙ্গে বাংলাদেশ সরকার। বহুল আলোচিত এই চুক্তি স্বাক্ষরের পর পূর্ণ হয়েছে ২২ বছর। শান্তিচুক্তি’র ২২ বছর পূর্তি উপলক্ষে জেলা পরিষদ, সেনাবাহিনী, সন্তু লারমা সমর্থিত পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (পিসিজেএসএস) বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

এর মধ্যে রয়েছে, ২ ডিসেম্বর সোমবার সকাল ৮টায় খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে ঐতিহাসিক পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির বাইশ বছর পূর্তিতে ২২টি স্মারক বৃক্ষরোপণের মধ্য দিয়ে কর্মসূচির সূচনা ও সকাল সাড়ে ৮টায় খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ প্রাঙ্গণ থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালি।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ভারত প্রত্যাগত উপজাতীয় শরণার্থী প্রত্যাবাসন ও পুনর্বাসন এবং অভ্যন্তরীণ উদ্বাস্তু নির্দিষ্টকরণ ও পুনর্বাসন সম্পর্কিত টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি।

বিকেল ৩টায় খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ ও খাগড়াছড়ি রিজিয়ন কর্তৃপক্ষের যৌথ উদ্যোগে খাগড়াছড়ি স্টেডিয়ামে আয়োজন করা হয়েছে ‘সম্প্রীতি কনসার্ট’। সন্ধ্যায় থাকছে মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্বলন এবং আকাশ রাঙানো আতশবাজি ও ফানুস উড়ানো।

জমকালো এ অনুষ্ঠানের ফাঁকে ফাঁকে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি সম্পাদনের (শান্তিচুক্তির) আগে ও পরে শান্তি প্রক্রিয়ায় বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে সন্মাননা প্রদান করা হবে। এছাড়া খাগড়াছড়ি সেনা রিজিয়নের ব্যবস্থাপনায় পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি উদযাপনের অংশ হিসেবে এ প্রথমবারের মতো খাগড়াছড়ি টাউন হল প্রাঙ্গণে রবিবার থেকে তিনদিন মেলার আয়োজন করা হয়েছে। মেলা চলবে প্রতিদিন বিকাল ৪টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত।

সারাদিন/২ডিসেম্বর/আর