সাতক্ষীরায় ভারত ফেরত যাত্রীদের পুলিশের মাস্ক বিতরণ

সাতক্ষীরা সংবাদাদাতাসাতক্ষীরা সংবাদাদাতা
প্রকাশিত: ৫:১৮ অপরাহ্ণ, ০৮/০২/২০২০

সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে বাংলাদেশে আসা যাত্রীদের পুলিশের পক্ষ থেকে মাস্ক বিতরণ করা হচ্ছে। এছাড়া করোনাভাইরাস বিষয়ে সতর্কতামূলক লিফলেটও বিতরণ করা হচ্ছে পুলিশের পক্ষ থেকে। এ কাজকে ইতিবাচকভাবে দেখছে যাত্রীরা।

ভারতের বাসিন্দা রঞ্জিত মন্ডল জানান, সাতক্ষীরা শহরে এক আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে এসেছি। বাংলাদেশে প্রবেশের সময় ভারতীয় সীমান্তে করোনা ভাইরাসের কোনো সতর্কতামূলক কার্যক্রম চোখে পড়েনি। তবে বাংলাদেশে ভোমরা সীমান্তে সতর্কতামূলক কার্যক্রম চলছে। টেমপারেসার পরীক্ষা করা, সতর্কতামূলক লিফলেট ও মাক্স দেয়া হচ্ছে। এটি পুলিশের একটি ভালো উদ্যোগ বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

ভারতের পুনে এলাকার আদিত্য ব্রিলা মেমোরিয়াল হাসপাতালের এ জি এম চিকিৎসক রানা ভট্টাচার্য বলেন, বাংলাদেশের সাতক্ষীরা সীমান্তে করোনাভাইরাস নিয়ে বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ যে সতর্কতামূলক কার্যক্রম করা হচ্ছে, সেটি দেখে ভালো লেগেছে। তবে প্রয়োজন নেই। পরীক্ষা-নিরীক্ষাগুলো এয়ারপোর্টগুলোতেই যথেষ্ট।

করোনাভাইরাস সতর্কতায় ভোমরা ইমিগ্রেশন পুলিশের পক্ষ থেকে মাক্স বিতরণ করা হচ্ছে জানিয়ে উপ-পরিদর্শক বিশ্বজিৎ সরকার বলেন, প্রতিদিন ৭০০-৮০০ পাসপোর্টধারী যাত্রী ভোমরা বন্দর দিয়ে যাতায়াত করেন। ভারত থেকে আগত যাত্রীদের আমরা পুলিশের পক্ষ থেকে সতর্ক করছি, মাক্স বিতরণ করছি।

সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন হুসাইন সাফায়েত বলেন, স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশনা অনুসারে ভারত থেকে আগত যাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হচ্ছে। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার লক্ষণ- যেমন : জ্বর, সর্দি, কাশি পাওয়া গেলে তাকে আমরা পর্যাবেক্ষণে রাখব। তবে এখনো পর্যন্ত এমন কাউকে পাওয়া যায়নি। পরীক্ষার জন্য ডিজিটাল থার্মোমিটার ব্যবহার করা হচ্ছে। তবে স্ক্যানার মেশিনটি নষ্ট হওয়ায় ব্যবহার করা সম্ভব হচ্ছে না।

সারাদিন/৮ফেব্রুয়ারি/ এএইচ