বিআইসিসিতে ‘বেসিস সফটএক্সপো’ শুরু,  উদ্বোধন করবেন রাষ্ট্রপতি

‘ট্রান্সফমিং লাইফ থ্রু ইনোভেশন’-স্লোগান নিয়ে আজ ৬ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হয়েছে চার দিনব্যাপী তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতভিত্তিক সবচেয়ে বড় প্রদর্শনী ‘বেসিস সফটএক্সপো-২০২০’। এটি চলবে ৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

বৃহস্পতিবার (৬ ফেব্রুয়ারি) এ মেলার উদ্বোধন করবেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ।

আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটি বসুন্ধরা (আইসিসিবি)-তে শুরু হওয়া এবারের বেসিস সফটএক্সপো নিয়ে বেশ আশাবাদি আয়োজক প্রতিষ্ঠান বেসিস। কারণ তাঁরা বলছে, নিজেদের সক্ষমতা ও নতুন নতুন কোন কোন সফটওয়্যার প্রোডাক্ট, সার্ভিস রয়েছে সে সবের জানান দিতেই এই আয়োজন।

মেলা নিয়ে বেসিস সভাপাতি সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন, এবারের এই মেলায় আমরা দেখাতে চাই যে, বিভিন্ন কোম্পানি যে কাজ করছে তাদের বিভিন্ন সফটওয়্যার, প্রোডাক্ট, সার্ভিস রয়েছে, অনেক নতুন নতুন ধরনের ইনোভেটিভ প্রোডাক্ট সার্ভিস আমাদের আছে সেটা অনেকেই জানেনা। সেই জানাতেই এই আয়োজন।

পুরো মেলাটায় আমাদের সক্ষমতাটাকে তুলে ধরে শোকোসিং হচ্ছে। দেশি-বিদেশি বায়ারদের সামনে যে আমাদের দেশীয় কোম্পানিগুলো কতটা সক্ষম এবং কতটা ভালো কাজ তারা করতে পারে, সেটা দেখানো হচ্ছে। আর এটা উদ্দেশ্য ছিলো বলেও জানান সৈয়দ আলমাস কবীর।

তিনশোর’ও বেশি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে জানিয়ে মেলার আহ্বায়ক এবং বেসিস-এর সহ-সভাপতি (অর্থ) মুশফিকুর রহমান বলেন, প্রদর্শনী এলাকাকে দশটি জোনে ভাগ করা হয়েছে। ইন্ডাস্ট্রি ৪.০ জোন এবং এক্সপেরিয়েন্স জোন বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সক্ষমতা তুলে ধরবে। রয়েছে ভ্যাট জোন, ডিজিটাল এডুকেশন জোন, ফিনটেক জোন, উইম্যান জোন এবং বরাবরের মতো রয়েছে সফটওয়্যার সেবা প্রদর্শনী জোন, উদ্ভাবনী মোবাইল সেবা জোন, ডিজিটাল কমার্স জোন, আইটিইএস ও বিপিও জোন। থাকবে ৩০টিরও বেশি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক সেমিনার, যেখানে বক্তব্য রাখবেন শতাধিক দেশি-বিদেশি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ।

জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি ফারহানা এ রহমান বলেন, অনেকেই আসলে দেশিয় পণ্য দেশিয় কোম্পানি কি করছে সেই বিষয়টি জানতে ও দেখতে চায়। তাদের চাওয়া পাওয়া পূর্ণ হয় এই এক্সপোর মাধ্যমে। সব কিছুরই জানার সুযোগ আছে এখানে। আর এটি একটি মিলন মেলায় পরিণত হয়।

এ মেলা একট নেটওয়াকিংয়ের সুবিধা ও সবার সাথে কোলাবেরশনেরও সুযোগ রয়েছে জানিয়ে সবাইকে বেসিস সফট এক্সপো-তে এসে সেমিনারে অংশগ্রহণ ও সব কিছুর পরখ করারও আহ্বান জানান ফারহান এ রহমান।

এদিকে জানা যায়, দেশি-বিদেশি ব্যবসায়ীদের জন্যে থাকছে বি-ট-ুবি ম্যাচমেকিং সেশন, যার মাধ্যমে ব্যবসায়ীরা নিজেদের ব্যবসার প্রসার খুব সহজেই করতে পারবেন। এ বছর সুইডেন, জাপান, নেদারল্যান্ডস থেকে ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদল বিটুবি ম্যাচমেকিং সেশনে অংশ নেবে।

পাশাপাশি অন্য খাত থেকে বেসিস সদস্য প্রতিষ্ঠানের সাথে সফলভাবে বিটুবি সেশন সম্পন্ন করা প্রতিষ্ঠানের মধ্য থেকে শীর্ষ ১০টি প্রতিষ্ঠানকে ‘বেসিস টপ টেন ডিজিটাল-রেডি কোম্পানি’ এর সম্মাননা প্রদান করা হবে।

২০০০ বেশি শিক্ষার্থীদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় আইসিটি ক্যারিয়ার ক্যাম্প। রয়েছে ৪৫টির বেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে ইনোভেটিভ প্রজেক্ট শো-কেসিং, যাদের মধ্যে প্রথম তিনটি ইনোভেটিভ প্রজেক্টকে পুরষ্কৃত করা হবে। থাকছে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় আউটসোর্সিং কনফারেন্স। দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের অংশগ্রহণে সিএক্সও লিডারশিপ মিট। পাশাপাশি থাকছে কনসার্টও।

এ ই বেসিস সফটএক্সপো ২০২০’র প্লাটিনাম স্পন্সর ডাচ বাংলা ব্যাংক লিমিটেড- সিলভার স্পন্সর ইউনাইটেড কমার্সিয়াল ব্যাংক লিমিটেড ।

৬ ফেব্রুয়ারি/আরটি